হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত বাংলার এই প্রাক্তন ক্রিকেটার! শোকের ছায়া ক্রীড়ামহলে

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত বাংলার এই প্রাক্তন ক্রিকেটার! শোকের ছায়া ক্রীড়ামহলে / Image Source : Twitter
হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত বাংলার এই প্রাক্তন ক্রিকেটার! শোকের ছায়া ক্রীড়ামহলে / Image Source : Twitter

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হলেন বাংলার প্রাক্তন ক্রিকেটার তথা মণিপুরের অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কোচ মুর্তাজা লোধগর। শুক্রবার রাত ১০টা ১৫ মিনিটে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল মাত্র ৪৫ বছর। বাংলার ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে এ খবর৷ মোর্তাজার মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ ক্রীড়ামহল।

মুর্তাজা অনুর্ধ্ব-১৯ বিনু মানকড় ট্রফির জন্য বিশাখাপত্তনমে ছিলেন। সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়৷ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গলের তরফে জানা গিয়েছে, তাঁর দেহ কলকাতায় নিয়ে আসা হবে৷ CAB প্রেসিডেন্ট অভিষেক ডালমিয়া জানিয়েছেন, “এই ঘটনায় সবাই শোকস্তব্ধ। ভাবতেই পারছি না মুর্তু ভাই(বাংলা দলে তাঁকে এই নামেই ডাকা হত) আর নেই। রাতে খাওয়াদাওয়ার পর দলের ফিজিওর সঙ্গে হাঁটতে বেরিয়েছিলেন। তারপর হঠাতই বুকে ব্যথা ওঠে আর রাস্তাতেই পড়ে যান। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ কিন্তু তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকেরা। মুর্তাজা একদম পারফেক্ট জেন্টলম্যান ক্রিকেটার ছিলেন। অত্যন্ত ভদ্র ব্যবহার এবং যথেষ্ট শৃঙ্খলাপরায়ন হয়ে থাকতে ভালোবাসতেন। তাঁর এরকম মৃত্যু মেনে নেওয়া যাচ্ছে না।”

অন্যদিকে, CAB সচিব স্নেহাশিষ গাঙ্গুলির কথায়, “এটা খুবই দুঃখজনক এবং হৃদয় বিদারক ঘটনা। জীবন কতটা অনিশ্চিত! সত্যি বলতে, আমি বিশ্বাসই করতে পারছি না মুর্তাজা আর আমাদের মধ্যে নেই। মাত্র ৪৫ বছর বয়সেই চলে গেল। আমি নিজের এক ভাইকে হারালাম। ওঁর মতো একজন জেন্টলম্যান ক্রিকেটার ও ভদ্র মানুষকে হারিয়ে বাংলার ক্রিকেটের অপূরণীয় ক্ষতি হল। ওঁর পরিবারকে গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।”

উল্লেখ্য, বাঁ হাতি স্পিন বোলার মুর্তাজা ৯ টি প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট খেলছেন। এছাড়াও বাংলার হয়ে পাঁচটি লিস্ট এ ম্যাচও খেলেছেন। সেই ম্যাচগুলিতে যথাক্রমে ৩৪ এবং ৫ উইকেটও রয়েছে তাঁর ঝুলিতে। তাঁর এই অকাল প্রয়াণে ক্রীড়ামহল জুড়ে শোকের ছায়া। জানা গিয়েছে, মুর্তাজাকে সম্মান জানাতে আজ, শনিবার বাংলা ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের পতাকা অর্ধনমিত থাকবে। পাশাপাশি আজ দুটো ম্যাচ শুরুর আগেই এক মিনিটের নীরবতা পালন করা হবে। এছাড়াও ক্রিকেটাররা বাহুতে কালো রংয়ের টেপ লাগিয়ে খেলতে নামবেন।