প্রয়াত বর্ষীয়ান সাংবাদিক তথা প্রাক্তন সাংসদ চন্দন মিত্র! শোকজ্ঞাপন মোদীর

প্রয়াত বর্ষীয়ান সাংবাদিক তথা প্রাক্তন সাংসদ চন্দন মিত্র! শোকজ্ঞাপন মোদীর
প্রয়াত বর্ষীয়ান সাংবাদিক তথা প্রাক্তন সাংসদ চন্দন মিত্র! শোকজ্ঞাপন মোদীর

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ প্রয়াত হলেন বর্ষীয়ান সাংবাদিক তথা রাজ্যসভার প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ চন্দন মিত্র। দীর্ঘদিন ধরেই তিনি শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন। বুধবার ভোর রাতে দিল্লিতে নিজের বাড়িতেই চন্দন মিত্র শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

তাঁর মৃত্যু সংবাদ এদিন ট্যুইটারে প্রথম জানান তাঁর বাল্যবন্ধু স্বপন দাশগুপ্ত। তিনি লেখেন, ‘আমি আমার প্রিয়তম বন্ধু, পাওনিয়ার পত্রিকার সম্পাদক এবং প্রাক্তন সাংসদ চন্দন মিত্র-কে হারালাম।’

স্বপন দাশগুপ্ত আরও লিখেছেন, ‘আমরা সেই লা মার্টিনিয়ারের স্কুল জীবন থেকে বন্ধু। একসঙ্গে সেন্ট স্টিফেন্স (দিল্লি) এবং অক্সফোর্ডেও গিয়েছিলাম আমরা। এমনকী আমরা সাংবাদিকতাও শুরু করি একসঙ্গে। অযোধ্যায় গেরুয়া ঝড় নিয়ে আমরা বহু অভিজ্ঞতা বিনিময় করেছিলাম।’

কলকাতায় স্টেটসম্যান হাউজের সাংবাদিক হিসেবে যাত্রা শুরু করেছিলেন চন্দন মিত্র। কিছুদিনের জন্য হংসরাজ কলেজে অধ্যাপনাও করেছিলেন তিনি। টাইমস অফ ইন্ডিয়া, দ্য সানডে অবজারভারের মত সংবাদমাধ্যমে বড় দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। বিজেপির টিকিটে দু’বার সংসাদ নির্বাচিত হন তিনি। ২০০৩ সালের রাজ্যসভায় নির্বাচিত হন। ২০১০ সালে মধ্যপ্রদেশ থেকে সাংসদ হন তিনি। ২০১৮ সালে চন্দন মিত্র দল বদলে তৃণমূলে যোগ দেন। পায়োনিয়ার নামক বিখ্যাত সংবাদমাধ্যমে সম্পাদক দীর্ঘদিন কাজ করেছেন চন্দন মিত্র। তবে, চলতি বছরের জুন মাসেই তিনি ইস্তফা দেন।

এদিন এই বর্ষীয়ান সাংবাদিকের প্রয়াণে শোকপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। তিনি টুইটে লেখেন, ‘প্রজ্ঞা ও জ্ঞানের জন্য চন্দন মিত্রকে (Chandan Mitra) মনে থাকবে। সাংবাদিকতা এবং রাজনীতি, দু’ক্ষেত্রেই তিনি সম্মান অর্জন করেছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে গভীর ভাবে শোকাহত। পরিবার ও অনুরাগীদের সমবেদনা জানাই। ও শান্তি।’