‘৮৩-র বিশ্বকাপজয়ী দলের অন্যতম তারকা! হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত প্রাক্তন ক্রিকেটার যশপাল শর্মা

'৮৩-র বিশ্বকাপজয়ী দলের অন্যতম তারকা! হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত প্রাক্তন ক্রিকেটার যশপাল শর্মা
'৮৩-র বিশ্বকাপজয়ী দলের অন্যতম তারকা! হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত প্রাক্তন ক্রিকেটার যশপাল শর্মা

ভারতীয় ক্রীড়াজগতে ফের এক নক্ষত্রপতন। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হলেন ১৯৮৩ সালে বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় দলের অন্যতম তারকা যশপাল শর্মা। মঙ্গলবার সকালেই হার্ট অ্যাটাকের ফলে মৃত্যু হয় এই প্রাক্তন ক্রিকেটারের। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৬ বয়স৷ তাঁর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ দেশের ক্রিকেটমহল।

১৯৫৪ সালের ১১ অগাস্ট, পাঞ্জাবের লুধিয়ানায় জন্মগ্রহণ যশপাল শর্মার। ছেলেবেলা থেকেই ছিল ক্রিকেটের দিকে ঝোঁক। ১৯৭২ সালে স্কুল ক্রিকেটে জম্মু-কাশ্মীরের বিরুদ্ধে দুরন্ত দ্বিশত রান করেন তিনি৷ পাঞ্জাবের হয়ে সেদিনের করা ২৬০ রান তাক লাগিয়ে দিয়েছিল ক্রিকেটমহলকে। দু বছরের মধ্যেই রাজ্যের হয়ে খেলার সুযোগ পেয়ে যান যশপাল। উত্তর জোন দলের সদস্য হয়ে পরবর্তীতে ভিজি ট্রফিও জিতেছিলেন। ফার্স্ট ক্লাস ক্রিকেটে উত্তর জোনের হয়ে সাউথ জোনের বিরুদ্ধে ১৭৩ রানও ছিল এই প্রাক্তন ক্রিকেটারের ঝুলিতে। চন্দ্রশেখর, এরাপল্লি প্রসন্ন এবং ভেঙ্কটারাঘবনের মতো তুখোড় সব খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে করা তাঁর ওই রান সে সময় মুগ্ধ করেছিল তাবড়-তাবড় ক্রিকেট ব্যক্তিত্বকে। রনজি ট্রফিতে পাঞ্জাব, হরিয়ানা এবং রেলওয়ের প্রতিনিধিত্বও করেছিলেন যশপাল।

ভারতের হয়ে প্রথম আত্মপ্রকাশ ১৯৭৯ সালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে। সত্তর ও আশির দশকে ভারতীয় মিডল অর্ডারের এক নির্ভরযোগ্য ক্রিকেটার ছিলেন যশপাল। ভারতের হয়ে মোট ৩৭টি টেস্টে আত্মপ্রকাশ করেন তিনি। দুটি সেঞ্চুরি এবং নয়টি হাফ সেঞ্চুরি সহ মোট ১৬০৬ রানও ছিল তাঁর সংগ্রহে। টেস্টে তাঁর রানের গড় ছিল ৩৩। সেসময় রীতিমতো ঈর্ষণীয় ছিল তা। শুধু তাই নয়! ৮৩’র বিশ্বকাপজয়ী দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন যশপাল। ভারতের বিশ্বকাপ জয়ের পিছনে তাঁর অবদান বিন্দুমাত্র কম ছিল না।

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসরের পর বেশ কিছুকাল ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ হিসেবেও কাজ করেছেন। বিসিসিআই, পাঞ্জাব এবং হরিয়ানা ক্রিকেট বোর্ডের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ পদেও ছিলেন যশপাল। মাত্র ৬৬ বছর বয়সে এহেন ব্যক্তিত্বের মৃত্যুতে স্বাভাবিকভাবেই ভারতীয় ক্রীড়ামহলে নেমেছে শোকের ছায়া।