পারিবারিক সমস্যার মীমাংসা করিয়ে দেওয়ার নামে বাড়িতে ডেকে এ কি করলেন কাকা!

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ মালদাঃ মাকে তালাক দেওয়ার প্রতিবাদ করেছিল ছেলেরা। আর তা মীমাংসা করিয়ে দেওয়ার নাম করে বাড়িতে ডেকে কাকার হাতে আক্রান্ত একই পরিবারের চারজন। এদের মধ্যে এক গৃহবধূর অবস্থা আশঙ্কাজনক। বর্তমানে তিনি মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তার পেটে লাথি মারার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদা থানার আজমতপুর এলাকায়। এই ঘটনায় মালদা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে আক্রান্তদের নাম রুমা বিবি বয়স ২৮। রহিদুল শেখ বয়স ২২, সহিদুর সেখ বয়স ৩২ এবং আহেদুল শেখ বয়স ২৫। বর্তমানে এদের তিন জনকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হলেও আশঙ্কাজনক অবস্থায় গৃহবধূ রুমা বিবি মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আক্রান্ত রহিদুল শেখ জানান, তার বাবা আজাহার শেখ তার মা রুমি বিবিকে তালাক দেয়। এই নিয়ে তাদের পরিবারে গন্ডগোল চলছিল। মাকে তালাক দেওয়ার প্রতিবাদ করেছিল তারা চার ভাই। অভিযোগ মীমাংসা করিয়ে দেবার নাম করে তার কাকা কাইনুল শেখ তাদের বাড়িতে ডাকে । সপরিবারে তারা চার ভাই কাকার বাড়ি গেলে লাঠিসোটা নিয়ে তার কাকা এবং দলবল তাদের ওপর চড়াও হয়ে মারধর করে বলে অভিযোগ। ঘটনায় তারা চার জন আহত হয়।

তার মধ্যে তার বৌদির অবস্থা আশঙ্কাজনক। আক্রান্ত ওই গৃহবধূর স্বামী সহিদুর শেখ জানান, পারিবারিক বিবাদ মীমাংসা করে দেওয়ার নাম করে বাড়িতে ডেকে তার কাকারা তাদের মারধোর করে। এই ঘটনায় আইনুল সেখ, জানসুর সেখ সহ ৬ জনের নামে মালদা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানা গেছে। পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অন্যদিকে আক্রান্ত গৃহবধূ রুমা বিবি জানান তার শাশুড়িকে মাঝেমধ্যে মারধোর করতো তার শশুর। ইতিমধ্যে তার শাশুড়িকে তালাক দেয় তার শ্বশুর। প্রতিবাদ করায় তাকে তার স্বামীকে এবং দেওরদের মারধর করা হয়। এই ঘটনায় দোষীদের শাস্তি দাবি করেন তিনি।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.