অন্যান্য

কিনেছিলেন বিড়াল, হয়ে গেল বাঘ! শখের মাশুল দিলেন ফ্রেঞ্চ দম্পতি!

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ শখ হয়েছিল বিড়াল বাচ্চা পোষার। হতেই পারে, মানুষের কতো কিই তো শখ হয়। তা এক ফ্রেঞ্চ দম্পতিরও হয়েছিল বিড়ালছানা পোষার। যেমন ভাবা তেমন কাজ, নিজেদের ইচ্ছাকে শেষপর্যন্ত মান্যতা দিয়ে, রীতিমতো দর কষাকষি করে, তাঁরা কিনে ফেলেন একটি ফুটফুটে সাভানাহ প্রজাতির বিড়ালছানা। পরম আদরে, যত্নে নতুন অতিথিকে ঘরে নিয়ে আসেন তাঁরা। কিন্তু পরিবারের সকলের আদুরে বিড়ালছানা বড় হতেই, সকলের মাথায় হাত।

একি বিপত্তি! পরে ওই দম্পতি হাড়েহাড়ে বুঝতে পারেন যে, মস্ত বড় ভুল করে ফেলেছেন তাঁরা, বিড়াল মনে করে, বাঘের ছানা বাড়িতে নিয়ে এসেছেন। এতদিন তাকে আদর-যতন করেও বড় করে তুলেছেন।

সম্প্রতি এই ঘটনাটি ঘটেছে, নরমান্ডির বন্দর শহর লে হাভেরে। এখানকার বাসিন্দা এক দম্পতি অনলাইনে একটি বিজ্ঞাপন দেখে, বিড়ালটি কিনতে চেয়েছিলেন। এটি আফ্রিকান সার্ভাল এবং একটি গৃহপালিত বিড়ালের মধ্যে ক্রস, এই ধরনের হাইব্রিড পোষ্য বাড়িতে রাখতে কোনও আইনি সমস্যা নেই ফ্রান্সে। তাই পছন্দ হতেই ৬০০০ ইউরো দিয়ে সেই বিড়াল কিনে ফেলেন ওই দম্পতি।

প্রথমদিকে এই বিড়াল ছানাকে নিয়ে তাঁরা খুব আনন্দিত ছিলেন। তাকে ঘিরে ওই দম্পতির সারাটা দিন কেটে যেত। কিন্তু কিছুদিন যেতে না যেতেই, কেমন যেন সন্দেহ বাসা বাঁধে ওই দম্পতির মনে। যাকে তাঁরা ঘরে বিড়াল বলে রেখেছেন, সে কি আদৌ বিড়াল! কি করবেন ওই দম্পতি বুঝে উঠতে পারছিলেন না। ডেকে আনা হয়, স্থানীয় পুলিশকে। সঙ্গে আসেন বন দফতরের আধিকারিকরাও। এরপর সেই বিড়ালরূপী ছোট্ট ছানাটিকে তাঁরা পরীক্ষা করে দেখেন যে, তা মোটেও বিড়াল নয়, সেটি আসলে সুমাত্রার বাঘের বাচ্চা।

তাহলেই ভাবুন, কার সঙ্গে সহবাস করছিলেন ওই দম্পতি! এই ঘটনায় ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওই দম্পতির বিপত্তির কিন্তু এখানেই শেষ নয়, না বুঝে হলেও, বাঘের বাচ্চা কেনার শখের মাশুল দিতে হত তাঁদেরও, আটক করা হয় ওই দম্পতিকে। যদিও পরে তাঁদের ছেড়েও দেওয়া হয়।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.

Back to top button