রাজ্যে আইন-শৃঙ্খলা ভেঙে পড়েছে, টুইটে মমতাকে হুঁশিয়ারি দিয়ে, আক্রমণাত্মক রাজ্যপাল

রাজ্যে আইন-শৃঙ্খলা ভেঙে পড়েছে, টুইটে মমতাকে হুঁশিয়ারি দিয়ে, আক্রমণাত্মক রাজ্যপাল
রাজ্যে আইন-শৃঙ্খলা ভেঙে পড়েছে, টুইটে মমতাকে হুঁশিয়ারি দিয়ে, আক্রমণাত্মক রাজ্যপাল

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ আজ সকালে নারদাকাণ্ডে গ্রেফতার করা হয় রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী হিরহাদ হাকিম, পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, কামার হাটির বিধায়ক মদন মিত্র এবং কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজ্য- রাজনীতি উত্তাল।

এই গ্রেফতারির পর থেকেই নিজাম প্যালেসের বাইরে তৃণমূলের কর্মী এবং সমর্থকরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয় নিজাম প্যালেসকে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে।

এই মুহূর্তে রাজ্যে এই গ্রেফতারিকে কেন্দ্র করে যে পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, তাতে আইনশৃঙ্খলা ভেঙে পড়েছে এনম মন্তব্য করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়৷ রাজ্যের আইন শঙ্খলা পরিস্থিতির উপর নিয়ন্ত্রণ রাখতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তিনি। সাংবিধানিক রীতি মেনে চলা এবং আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করার জন্যও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

এর পাশাপাশি রাজ্যপাল স্পষ্টভাবে হুঁশিয়ারির সুরে জানিয়েছেন যে, রাজ্যে আইনের শাসন এবং সাংবিধানিক ব্যবস্থা এভাবে ভেঙে পড়লে তার ফলাফল কী হতে পারে, তাও যেন ভেবে দেখেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। এদিন টুইটে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় অভিযোগ করেছেন যে, রাজ্যের পুলিশ প্রশাসন কোনও ব্যবস্থা না নিয়ে, পরিস্থিতি আরও জটিল করে তুলছে এবং তা কার্যত হাতের বাইরে দেতে দেওয়া হচ্ছে। তিনি লিখেছেন যে, ‘রাজ্যের এই পরিস্থিতি দেখে আমি উদ্বিগ্ন। মুখ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ, তিনি যেন সাংবিধানিক বিধি এবং আইনের শাসকন মেনে চলেন৷ আইনশৃঙ্খলা বজার রাখতে রাজ্য পুলিশ, কলকাতা পুলিশ স্বরাষ্ট্র দফতরের উচিত সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা। দুঃখের বিষয় কোনও ব্যবস্থা গ্রহণ না করে, পরিস্থিতি হাতের বাইরে যেতে দেওয়া হচ্ছে।’

উল্লেখ্য, উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই নারদা মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চার্জশিট গঠনের প্রস্তাবে সায় দেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। সেই সূত্রেই আজ সকালে ফিরহাদ, মদন মিত্রদের বাড়ি পৌঁছে যায় সিবিআই-এর দল। তৃণমূলের পক্ষ থেকে এই অনুমোদন ইতিমধ্যেই বেআইনি বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

অন্যদিকে, আরও একটি টুইটে রাজ্যপাল লিখেছেন যে, ‘রাজ্যে আইনশৃঙ্খলা সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে এবং বিশৃঙ্খলা চলছে বলে মুখ্যমন্ত্রীকে বার্তা পাঠিয়েছি৷ পুলিশ- প্রশাসন সম্পূর্ণ নীরব৷ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি এবং সাংবিধানিক ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার কী ফলাফল হতে পারে, আশা করি আপনি বুঝতে পারছেন৷ প্রত্যেক মিনিটে পরিস্থিতির যেভাবে অবনতি হচ্ছে অবিলম্বে তার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করা উচিত৷’

এরপরেও আরও একটি টুইট করেন রাজ্যপাল। সেখানে তিনি নিজাম প্যালেসের বাইরে তৃণমূলের কর্মী- সমর্থকদের বিক্ষোভ এবং ইটবৃষ্টিকে কেন্দ্র করে সরব হয়েছেন। এ বিষয়েও মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি অভিযোগ করেছেন যে, কলকাতা পুলিশ এবং রাজ্য পুলিশ নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করছে।

রাজ্যপাল যাই বলুন না কেন, তৃণমূল অবশ্য রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়ে তীব্র সমালোচনায় সরব হয়েছে৷ দলের একাধিক নেতার অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশেই তৃণমূল নেতাদের গ্রেফতারির নির্দেশে অনুমোদন দিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়৷