‘রাজ্যে নারী নির্যাতন বাড়ছে’, ফের মমতাকে দু’পাতার নোট পাঠালেন রাজ্যপাল

‘রাজ্যে নারী নির্যাতন বাড়ছে’, ফের মমতাকে দু’পাতার নোট পাঠালেন রাজ্যপাল
‘রাজ্যে নারী নির্যাতন বাড়ছে’, ফের মমতাকে দু’পাতার নোট পাঠালেন রাজ্যপাল

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ রাজ্যের নারী নির্যাতন ও প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে ফের একবার তোপ দাগলেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। শনিবার সকালেই রাজভবন থেকে মুখ্যমন্ত্রীর নামে নবান্নে নোট পাঠানো হয়। তাতে অভিযোগ করা হয়েছে, রাজ্যে নারী নির্যাতন বাড়ছে, অথচ প্রতিকার হচ্ছে না, প্রশাসন নিষ্ক্রিয়।

শুরুতেই রাজ্যে গত তিনমাসে নারীদের উপর অত্যাচারের পরিসংখ্যান তুলে ধরে তা যে সংশ্লিষ্ট জেলা পুলিশ সূত্রেই পাওয়া, উল্লেখ করেছেন রাজ্যপাল। এর প্রতিকারে প্রশাসনিক উদাসীনতা দেখে তিনি বিস্মিত বলেও জানিয়েছেন। এমনকী এ বিষয়ে মুখ্যসচিবকে রাজভবনের তরফে আলোচনার প্রস্তাব পাঠালেও, কোনও জবাব আসেনি বলে অভিযোগ করেছেন রাজ্যপাল। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তাঁর আবেদন, এসব অন্যায়ের প্রতিকারে তিনি সদর্থক পদক্ষেপ গ্রহণ করে জনসচেতনতায় জোর দেবেন।

বিভিন্ন জেলা পুলিশের তরফে পাওয়া রিপোর্টের ভিত্তিতে তিনি এই প্রমাণ পেয়েছেন বলে রাজ্যপাল জানান নোটে। এছাড়া সাংবিধানিক প্রধান হিসেবে তাঁর ভূমিকাকে প্রশাসন যে দৃষ্টিতে দেখছে, তা নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ধনকর। মুখ্যমন্ত্রীকে লেখা চিঠি তিনি টুইটও করেছেন।

নোটে এর পরের অংশেই রাজ্যপাল উল্লেখ করেছেন তাঁর প্রতি প্রশাসনের মনোভাবের কথা। লিখেছেন, সাংবিধানিক প্রধান হিসেবে তিনি রাজ্যের নানা নেতিবাচক দিক তুলে ধরে সতর্ক করার চেষ্টা করেন, কিন্তু তাঁর এই ভূমিকাকে বারবার ‘ভিত্তিহীন’, ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ বলে উল্লেখ করার যে নিদর্শন তিনি দেখে আসছেন, তা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। তাঁর মত, এ থেকেই বোঝা যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের আমলে পুলিশ প্রশাসনের রাজনীতিকরণ হয়েছে। এভাবে তাঁরা গণতন্ত্রের মূল ভিত্তিকে দুর্বল করে তুলছেন, যার প্রভাব জনমানসে পড়বে বলেই মনে করছেন রাজ্যপাল।

নোটের সঙ্গে গত ৭ অক্টোবর মুখ্যমন্ত্রীকে লেখা তাঁর একটি চিঠি যুক্ত করে দিয়েছেন ধনকর। আগেও রাজ্যপালের এ রকম বার্তা এসেছে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে। জবাব আসেনি। রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, এভাবে রাজ্যপাল ক্রমাগত চাপ তৈরি করছেন মুখ্যমন্ত্রীর ওপর। রাজ্যে সংবিধানের ৩৫৬ ধারা প্রয়োগের সম্ভাবনা নিয়ে যখন আলোচনা হচ্ছে বিভিন্ন স্তরে, সে সময়ে এই চিঠির তাৎপর্য রয়েছে বলে মনে করছেন অনেকে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.