দ্বৈরথ ভুলে মমতাকে দেখতে হাসপাতালে রাজ্যপাল

দ্বৈরথ ভুলে মমতাকে দেখতে হাসপাতালে রাজ্যপাল
দ্বৈরথ ভুলে মমতাকে দেখতে হাসপাতালে রাজ্যপাল

বুধবার বিকেলে নন্দীগ্রামে গিয়ে পায়ে চোট পান তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চোট লাগা মাত্রই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে আসা হয় কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে। তৃণমূল নেত্রী এসএসকেএম পৌঁছাতেই দ্বৈরথ ভুলে তাকে দেখতে হাসপাতালে পৌঁছালেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর। যদিও রাজ্যপাল হাস্পাতালে পৌঁছানও মাত্রই তাঁকে দেখে গো ব্যাক স্লোগান দেয় তৃণমূল সমর্থকরা।

এসএসকেএম হাসপাতাল সূত্রে খবর, এসএসকেএম হাসপাতালে মমতা বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে যাওয়া হয় স্ট্রেচারে চাপিয়ে হাসপাতালের উডবার্ন ওয়ার্ডের ভিভিআইপি কেবিনে। এরপর পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্য তৈরি মেডিক্যাল টিমে রয়েছেন অর্থোপেডিক, কার্ডিওলাজি ও মেডিসিন বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিত্সকরা। এদিন খবর পাওয়া মাত্রই হাসপাতালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখতে পৌঁছান রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর।

প্রসঙ্গত, বিধানসভা নির্বাচনে নন্দীগ্রাম থেকে প্রার্থী হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।জানা যায় এদিন নন্দীগ্রামে প্রচারে গিয়ে পায়ে গুরুতর আঘাত পান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপর সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,’পা ফুলে গিয়েছে। ভিড় ছিল। ৪-৫ জন মিলে ধাক্কাধাক্কি করেছে। স্থানীয় পুলিস ছিল না। পুলিশ সুপারও ছিল না। জেনে বুঝেই এটা করেছে। আমার বুকে যন্ত্রণা করছে। নির্বাচন কমিশনে জানাব’।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.