দুটি নয়, করোনা মোকাবিলায় কোভিশিল্ডের এক ডোজেই কি হবে বাজিমাত? জেনে নিন কেন্দ্র কী বলছে!

দুটি নয়, করোনা মোকাবিলায় কোভিশিল্ডের এক ডোজেই কি হবে বাজিমাত? জেনে নিন কেন্দ্র কী বলছে! / প্রতীকী ছবি
দুটি নয়, করোনা মোকাবিলায় কোভিশিল্ডের এক ডোজেই কি হবে বাজিমাত? জেনে নিন কেন্দ্র কী বলছে! / প্রতীকী ছবি

করোনা মোকাবিলায় দেশ জুড়ে চলছে টিকাকরণ। ইতিমধ্যেই প্রায় ২০ কোটির বেশি মানুষকে দেওয়া হয়েছে ভ্যাকসিন। তবে এর মধ্যেই দেশে দেখা দিয়েছে ভ্যাকসিনের আকাল। তা ঠেকাতে ভ্যাকসিনের দুটি ডোজের মধ্যে ব্যবধান বাড়ানোর প্রস্তাবও দিয়েছিল দেশের বিশেষজ্ঞ কমিটি। তবে এবার আরেক পন্থার দারস্থ হল কেন্দ্র! কোভিশিল্ডের দুটি ডোজের বদলে একটি ডোজেই যদি হয় বাজিমাত! তাহলে কেমন হবে? সম্প্রতি এই প্রশ্নেরই সঠিক উত্তর পেতে শুরু হয়ে গেল পরীক্ষা।

উল্লেখ্য, এর আগে প্রাথমিক ভাবে কোভিশিল্ডের প্রথম ডোজের ২৮ থেকে ৪২ দিন অর্থাৎ ৪ থেকে ছয় সপ্তাহের ব্যবধানে দেওয়া হত দ্বিতীয় ডোজ। মার্চে তা বদলে দুটি ডোজের মধ্যে ব্যবধান হয় ৪ থেকে ৮ সপ্তাহের। এরপর গতমাসেই ফের বাড়ানো হয় এর ব্যবধান। অর্থাৎ তিন মাসে দ্বিতীয়বার কোভিশিল্ডের দু’টি ডোজের ব্যবধান বাড়ানো হয়। তবে এবার শুরু ব্যবধান বাড়ানোই নয়; দুটির বদলে একটি ডোজেই করোনা প্রতিরোধ সম্ভব কিনা তা খতিয়ে দেখছে কেন্দ্র।

সম্প্রতি ন্যাশনাল টেকনিক্যাল অ্যাডভাইজরি গ্রুপ অফ ইমিউনিজেশনের (NTAGI) কোভিড বিভাগের চেয়ারম্যান এন কে আরোরা জানিয়েছেন, “কোভিশিল্ডের একটি ডোজ ঠিক কতটা কার্যকরী, তা খতিয়ে দেখা হবে। রাশিয়ার টিকা স্পুটনিক লাইট এবং জনসন অ্যান্ড জনসন টিকা মতো কোভিশিল্ডও একই গোত্রের৷ তাই ওই টিকাগুলির মতো করোনার মোকাবিলায় কোভিশিল্ডেরও একটি ডোজই যথেষ্ট কিনা তা পরীক্ষা করে দেখা হবে।”

অন্যদিকে একই সুর বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জ্ঞানেশ্বর চৌবের গলাতেও। তিনি জানান, “আমরা ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা করেছি। দেখা গিয়েছে, করোনা জয় করে ফিরেছেন বা এখনও অবধি করোনায় আক্রান্ত হননি, সেরকম ব্যক্তির জন্য টিকার একটি ডোজই যথেষ্ট।” টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার পর প্রথম সপ্তাহে শরীরে যে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়, তাতেই সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা সম্ভব বলেও জানিয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, জানা গিয়েছে, প্রাথমিকভাবে টিকার একটি ডোজ দেওয়ারই পরিকল্পনা হয়েছিল। কিন্তু গবেষণায় দেখা গিয়েছিল, দুটি ডোজ নিলে প্রতিরোধ ক্ষমতা আরও বাড়ছে। সেই কারণে কোভিশিল্ডের জোড়া ডোজই দেওয়া হচ্ছিল এতদিন। কিন্তু সম্প্রতি ভ্যাকসিনের আকালে আবার নতুন পন্থার চিন্তা করছে কেন্দ্র। তাই ভ্যাকসিনের দুটি ডোজের বদলে একটি ডোজেই কাজ হয় কিনা তা যথাসম্ভব খতিয়ে দেখার কাজ চলছে৷ ছাড়পত্র মিললে তবেই একটি ডোজে বাজিমাত করার কথা ভাববে কেন্দ্র।