আগামীকাল থেকে বন্ধ পাহাড়ের সব হোটেল-বার-রেস্তোঁরা, বিজ্ঞপ্তি দিয়েও প্রত্যাহার করল জিটিএ

আগামীকাল থেকে বন্ধ পাহাড়ের সব হোটেল-বার-রেস্তোঁরা, বিজ্ঞপ্তি দিয়েও প্রত্যাহার করল জিটিএ
আগামীকাল থেকে বন্ধ পাহাড়ের সব হোটেল-বার-রেস্তোঁরা, বিজ্ঞপ্তি দিয়েও প্রত্যাহার করল জিটিএ

রাজ্যের করোনা সংক্রমনের হাল ক্রমেই খারাপের দিকে যাচ্ছে। এর প্রভাব পড়ছে উত্তরবঙ্গেও। এই পরিস্থিতিতে আগামীকাল থেকে পাহাড়ের সব হোটেল, বার, রেস্তোঁরা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল গোর্খাল্যান্ড টেরিটোরিয়াল অ্যাডমিন্সট্রেশন বা জিটিএ। কিন্তু পরে সেই সিদ্ধান্ত বাতিল করা হয়।

আগের বছর থেকে যখন করোনা সংক্রমণ শুরু হয়েছিল তখনই বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছিলেন ঠান্ডায় এর বাড়বাড়ন্ত বেশি হবে। সেই মতই মৃত্যুর সংখ্যা সেখানে নিত্যদিন না বাড়লেও এখন সেখানে প্রতিদিন প্রায় ১০০জন করে মানুষ নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হচ্ছেন। যেহেতু পাহাড়ি এলাকা ও ঠান্ডার জায়গা তাই কোভিডের সক্রিয়তা সেখানে সমতলের তুলনায় বেশি। গতবছরও দেখা গিয়েছিল উত্তরবঙ্গের সমতল অপেক্ষা পার্বত্য এলাকায় কোভিডের প্রকোপ বেশ বেশি ছিল।

এদিন জিটিএ-র তরফে প্রথমে বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়, আগামিকাল থেকে অনির্দিষ্টকাল পর্যন্ত পাহাড়ের সব হোটেল, বার, রেস্তোঁরা বন্ধ থাকবে। একইসঙ্গে বন্ধ থাকবে কফিশপ, মোমোর স্টলও। কিন্তু রাজ্য সরকারের তরফে লকডাউন নিয়ে এখনই কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় নি। এদিকে এই সিদ্ধান্তের কথা ছড়িয়ে পড়ার পরে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা যায় ব্যবসায়ী মহলেও। এরপরেই তড়িঘড়ি সেই সিদ্ধান্ত বাতিল করতে বাধ্য হয় জিটিএ।

গতবছর করোনার কারণে লক ডাউন হওয়ায় মার খেয়েছে পর্যটন শিল্প। এবার আবারও সেই ছবিই কার্যত ফিরে আসার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছিল পাহাড়ের বুকে। কিন্তু এই সিদ্ধান্তে সম্মতি না পেয়ে শেষ পর্যন্ত ওই বিজ্ঞপ্তি প্রত্যাহার করা হয়।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.