২৮ বছরের চাকরি জীবনে ৫৩ বার বদলি, সততার পুরষ্কার পেয়ে ট্যুইট হরিয়ানার এই আমলার

Image source: Google

বিশেষ প্রতিবেদনঃ সত্যের সঙ্গে কোন আপোস না করেই কাটিয়েছেন ২৮ বছরের চাকরি জীবনে। কিন্তু তাঁর জন্য এত ভালো কিছু উপহার যে তাঁর জন্য অপেক্ষা করে ছিল তা বিশ্বাসও করতে পারেননি হরিয়ানার শীর্ষস্থানীয় সরকারি আমলা অশোক খেমকা। তাই এবার নিজেই ট্যুইট করে সেই প্রাপ্তির কথা সকলকে জানালেন শীর্ষস্থানীয় এই আমলা। তিনি জানান সততার পুরষ্কার হিসাবে তাঁর কপালে জুটেছে বদলি। সৎ ভাবে নিজের কাজ করায় ২৮ বছরের কেরিয়ারে এই নিয়ে ৫৩ বার বদলি হতে হয়েছে তাঁকে।

কোন শাসক দলেরই দুর্নীতিকে সহ্য করেননি তিনি। এমনকি সবসময় সরকারের ভুল সিদ্ধান্তের বিরোধীতাও করে এসেছেন তিনি। তাই যখন যে সরকার ক্ষমতায় এসেছেন সকলেরই বিরাগভাজন হয়েছেন অশোকবাবু। যখন কংগ্রেস ক্ষমতায় ছিল তখন বিজেপির ‘মনের মানুষ’ থাকলেও পরে বিজেপি ক্ষমতায় আসার সাথে সাথেই সেই অবস্থানের পরিবর্তন ঘটেছে। এখন তিনি বিজেপি সরকারেও চক্ষুশূল। ২০১২ সালে তৎকালীন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর সঙ্গে রবার্ট বঢরার একটি জমি চুক্তি হওয়ার কথা ছিল। সেই চুক্তি বাতিল করে দেন অশোক। কারন তাঁর কথা অনুযায়ী, কোন প্রকার নিয়ম মেনে এই চুক্তিটি করা হচ্ছিলনা। তখনই তিনি প্রথমবারের জন্য খবরের শিরোনামে আসেন।

আর এই চুক্তি বাতিলের জেরে তাঁকে কংগ্রেস সরকার শাস্তি স্বরূপ বদলি করে দেয়। সেই সময় কংগ্রেসের এই সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধীতা করেছিল গেরুয়া শিবির। কিন্তু ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পর বিজেপির সাথেও অশোকের সম্পর্ক ঠিক একই জায়গায় গিয়ে দাঁড়ায়। ২০১৪ থেকে এখন পর্যন্ত তাঁকে একাধিকবার বদলি করে বিজেপি সরকার। মাস ছ’এক আগেই তাঁকে হরিয়ানার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দপ্তরের প্রধান সচিবের পদে বদলি করে দেয় বিজেপি সরকার। আর ঠিক সেভাবেই এবারও অশোক খেমকাকে এবার বদলি করা হল সংরক্ষনাগার, পুরাতত্ত্ব এবং জাদুঘর বিভাগে।

সত্যনিষ্ঠতার ফলস্বরূপ তাঁর জন্য যে এইরকম পুরষ্কার অপেক্ষা করছিল তা একেবারেই আশা করেননি অশোকবাবু। তাই এদিন ট্যুইয়ারে নিজের আক্ষেপের কথা জানালেন সরকারের শীর্ষস্থানীয় এই আমলা।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.