হাসপাতালের ভিতর চুপ করতে বলায়, রেগে ডাক্তারের ওপর ছুরি নিয়ে তেড়ে এল যুবক

হাসপাতালের ভিতর চুপ করতে বলায়, রেগে ডাক্তারের ওপর ছুরি নিয়ে তেড়ে এল যুবক
হাসপাতালের ভিতর চুপ করতে বলায়, রেগে ডাক্তারের ওপর ছুরি নিয়ে তেড়ে এল যুবক

করোনা আক্রান্ত আত্মীয়কে দেখতে গিয়ে হাসপাতালের মধ্যেই যাচ্ছেতাই কাণ্ড ঘটালেন এক যুবক৷ হাসপাতালে জোরে কথা বলার অভিযোগে তাঁকে চুপ করতে বলায় ডাক্তারের দিকেই ছুরি নিয়ে আক্রমণে তেড়ে গেলেন ওই যুবক। যদিও আশেপাশের অন্যান্য মানুষের সহায়তায় প্রাণে বেঁচে যান ডাক্তারটি। তবে অভিযুক্ত যুবককে ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় মামলাও দায়ের করা হয়েছে।

ঘটনাটিকে ঘটে, মহারাষ্ট্রের নান্দের জেলার একটি সরকারি হাসপাতালে। সূত্রের খবর, গত ২০ এপ্রিল বাসুদেব গায়কোয়াড নামে ওই যুবক জেলা হাসপাতালের কোভিড ওয়ার্ডে গিয়েছিলেন। সেখানে ভর্তি তাঁর আত্মীয়ের সঙ্গে দেখা করে তাঁর সঙ্গে চেঁচিয়ে কথা বলতে শুরু করেন ওই ব্যক্তি। তাঁর স্বর এতটাই উচ্চ ছিল যে এতে অন্যান্য রোগী এবং আত্মীয়রা বিরক্ত বোধ করেন। তা দেখে এগিয়ে আসেন এক চিকিৎসক। বাসুদেবকে আস্তে কথা বলতে নয়তো একেবারে চুপ করতে বলেন তিনি। এই নিয়ে তাঁদের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়ে যায়।

এরপর আচমকাই পকেট থেকে ছুরি বের করে চিকিৎসকের দিকে তেড়ে যান বাসুদেব। তবে অন্যান্য কর্মী এবং রোগীদের আত্মীয়দের সহায়তায় তাঁকে আটকানো হয়। ফলে বড়সড় বিপদ থেকে রক্ষা পেয়েছেন চিকিৎসকটি৷ তবে ছুরির আঘাতে হাল্কা চোট লাগে তাঁর। পরে স্থানীয় পুলিশ স্টেশনে যুবকটির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হলে অভিযুক্ত বাসুদেবকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাঁর বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টা, সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার মামলা দায়ের করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, মহারাষ্ট্রের নান্দের জেলার করোনা পরিস্থিতি বেশ ভয়াবহই বলা চলে। করোনা রুখতে মহারাষ্ট্র সরকার বুধবার রাতে একগুচ্ছ নতুন নিয়মও চালু করেছে। নতুন নিয়ম অনুযায়ী, সরাসরি করোনা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির সঙ্গে যুক্ত নয় এমন সরকারি ও বেসরকারি অফিসের উপস্থিতি ১৫ শতাংশের বেশি না রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মহারাষ্ট্রে বৃহস্পতিবার রাত আটটা থেকে পয়লা মে সকাল সাতটা পর্যন্ত এই নিয়মগুলি জারি থাকবে বলেও জানানো হয়েছে।