IND vs NZ: কানপুর টেস্টের সেরা হয়েও সন্তুষ্ট নন শ্রেয়াস! আক্ষেপের গলায় নিজেই জানালেন কারণ

IND vs NZ: কানপুর টেস্টের সেরা হয়েও সন্তুষ্ট নন শ্রেয়াস! আক্ষেপের গলায় নিজেই জানালেন কারণ
IND vs NZ: কানপুর টেস্টের সেরা হয়েও সন্তুষ্ট নন শ্রেয়াস! আক্ষেপের গলায় নিজেই জানালেন কারণ

অভিষেক টেস্টেই বাজিমাত করেছেন ভারতের তরুণ ব্যাটার শ্রেয়াস আইয়ার। কানপুরে কিংবদন্তি সুনীল গাভাসকারের হাত থেকে ডেবিউ টেস্ট ক্যাপ হাতে নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন তিনি। আর অভিষেকেই প্রথম ইনিংসে হাঁকান দুরন্ত সেঞ্চুরি। শুধু তাই নয়, দ্বিতীয় ইনিংসেও প্রবল চাপের মুখে অনবদ্য হাফ সেঞ্চুরি করে দলকে ভরসা যোগান তিনি। স্বাভাবিকভাবেই ম্যাচের সেরাও নির্বাচিত করা হয় তাঁকে। তবুও সন্তুষ্ট নন শ্রেয়াস। ম্যাচ শেষে তাঁর গলায় শুধুই আক্ষেপ। কিন্তু কেন?

আসলে কানপুরের গ্রীনপার্ক স্টেডিয়ামে সুযোগ পেয়েও জিতে মাঠ ছাড়তে পারেনি টিম ইন্ডিয়া। শেষ উইকেটে দাঁতে দাঁত চেপে লড়াই করে টেস্ট ড্র করল নিউজিল্যান্ড। ভারতের ২৮৪ রানের টার্গেট মাথায় নিয়ে ব্যাট করতে নেমে ৯৮ ওভারে ৯ উইকেটে ১৬৫ রানে এসে থামল কিউয়িদের ইনিংস। দুই ভারতীয় বংশোদ্ভূত রচিন রবীন্দ্র ও আজাজ প্যাটেলের উইকেট কিছুতেই তুলতে পারল না রাহানে ব্রিগেড। ফলাফল ম্যাচ ড্র। তাই ম্যাচ শেষে ভারতের কাছে আক্ষেপের অন্ত নেই। সেটাই যেন প্রকাশ করলেন শ্রেয়াস।

IND vs NZ: কানপুর টেস্টের সেরা হয়েও সন্তুষ্ট নন শ্রেয়াস! আক্ষেপের গলায় নিজেই জানালেন কারণ
IND vs NZ: কানপুর টেস্টের সেরা হয়েও সন্তুষ্ট নন শ্রেয়াস! আক্ষেপের গলায় নিজেই জানালেন কারণ

আইয়ারের কথায়, “পিচ একই রকম ছিল। আমাদের বোলাররা এই উইকেটে খুবই ভাল বল করেছে। ওরা শুরুটা খুব ভাল করেছিল। ফলে শুরু থেকে আমাদের উপর চাপ ছিল। তারপর যখন পরপর উইকেট তুলে নিলাম, আমাদের বোলাররা পরিস্থিতি খুব ভাল ভাবে কাজে লাগাল। তবে এই টেস্ট জিততে পারলে সেটাই হত আসল প্রাপ্তি।”

পাশাপাশি নিজের ব্যাটিং প্রসঙ্গেও মুখ খুললেন মুম্বইয়ের এই ক্রিকেটার। তিনি বলেন, “লোকজন বলে আমি সব সময় চালিয়ে ব্যাট করি। কিন্তু এই টেস্টের দুই ইনিংসেই ধৈর্য বজায় রেখে ব্যাট করা উচিত ছিল। সেটাই করেছি। প্রতিটা সেশন ও যত বেশি সংখ্যক বল খেলার চেষ্টা করে গিয়েছি। আমি নিজের পারফরম্যান্সে গর্বিত। দলের পারফরম্যান্সও দারুণ ছিল। কারণ ওরা একটা সময় টেস্টে ভাল জায়গায় ছিল। সেখান থেকে কামব্যাক করা কিন্তু সহজ ছিল না। তবে কিন্তু জিতলে ষোল কলা পূর্ণ হত।”

প্রসঙ্গত, আগামী ৩ ডিসেম্বর মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট ম্যাচ খেলতে নামবে ভারত ও নিউজিল্যান্ড। এই টেস্টে অধিনায়ক হিসেবে ফিরবেন বিরাট কোহলি। সেক্ষেত্রে প্রথম একাদশে শ্রেয়াস স্থান পান কি না, তা দেখার জন্যই উৎসুক ক্রীড়াপ্রেমীরা।