করোনা গ্রাফে স্বস্তি! গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে কমল করোনার দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা

করোনা গ্রাফে স্বস্তি! গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে কমল করোনার দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা
করোনা গ্রাফে স্বস্তি! গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে কমল করোনার দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা / প্রতীকী সংখ্যা

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দেড় বছর কেটে গেলেও, দেশ এখনও করোনার কবল থেকে মুক্ত হতে পারেনি। তার মধ্যেই স্বাভাবিক ছন্দে ফেরার চেষ্টা করছে দেশ। আর সেই লক্ষ্য পূরণের জন্য জোর দেওয়া হচ্ছে টিকাকরণের উপর। সম্প্রতি করোনার টিকার প্রক্রিয়াকে আরও সুগম এবং ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে ‘হর ঘর দস্তক’ প্রকল্পের সূচনা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। করোনার টিকার প্রক্রিয়াকে আরও সুগম এবং ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে নতুন প্রকল্পের সূচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এবার মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার ভ্যাকসিন দিয়ে আসবেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। এদিকে, উৎসবের মরশুমেও দেশের করোনা গ্রাফে ওঠানামা অব্যাহত রয়েছে। গত ঘণ্টায় কমল দৈনিক আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা।

সপ্তাহের প্রথম দিন অর্থাৎ সোমবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১০ হাজার ২২৯ জন। এই সংখ্যাটা আগের দিনের থেকে কম। করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দেশে মোট ৩ কোটি ৪৪ লক্ষ ৪৭ হাজার ৫৩৬।

এদিকে, রিপোর্ট অনুযায়ী, মারণ ভাইরাসে ২৪ ঘণ্টায় প্রাণ হারিয়েছেন ১২৫ জন। গতকালের থেকে মৃতের সংখ্যা কম। গতকাল দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ২৮৫ জন। দেশে এখনও অবধি করোনার বলি ৪ লক্ষ ৬৩ হাজার ৬৫৫ জন।

তবে, কেরলের কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে চিন্তা এখনও জারি রয়েছে। দেশে মোট দৈনিক আক্রান্তের অর্ধেকেরই বেশি এই রাজ্যের। কেরলে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ৫৮৪৮ জন, মৃত্যু হয়েছে ৪৬ জনের। আর একদিনে এ রাজ্যে করোনার কবল থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭২২৮ জন।

সংক্রমণ বৃদ্ধি পেলেও, প্রতিদিনই একটু একটু করে কমছে অ্যাকটিভ কেস। সক্রিয় রোগীর নিম্নমুখী গ্রাফই আশার আলো দেখাচ্ছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট বলছে, ৫২৩ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন অ্যাকটিভ কেস এবং সুস্থতার হার ২০২০ সালের মার্চ মাসের নিরিখে সর্বোচ্চ। এই মুহূর্তে দেশে অ্যাকটিভ কোভিড রোগীর সংখ্যা ১ লক্ষ ৩৪ হাজার ৯৬ হাজার। সুস্থতার হার ৯৮.২৬ শতাংশ। এই পরিসংখ্যানে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। প্রতিদিনই একটু একটু করে কমছে সংখ্যাটা।

সোমবার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত বছরের মার্চ মাস থেকে অর্থাৎ গত ২০ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ দেশে করোনা থেকে সুস্থতার হার। এ নিয়ে দেশে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ কোটি ৩৮ লক্ষ ৪৯ হাজার ৭৮৫ জন। উৎসবের মরশুমে গতি হারিয়েছিল টিকাকরণ। যা ফের স্বাভাবিক হচ্ছে। তবে জোরকদমে চলছে টিকাকরণের কাজ। এখনও পর্যন্ত ১১২ কোটি ৩৪ লক্ষ ৩০ হাজার ৪৭৮ জন টিকা পেয়েছেন। চলতি বছরের মধ্যে সব দেশবাসীকে টিকার আওতায় আনার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে কেন্দ্র।