বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২

উদ্বেগ বাড়াচ্ছে ঊর্ধ্বমুখী অ্যাকটিভ কেস! গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সংক্রমণের হার বাড়ল ৬.৭ শতাংশ

১১:২২ এএম, জানুয়ারি ১৪, ২০২২

উদ্বেগ বাড়াচ্ছে ঊর্ধ্বমুখী অ্যাকটিভ কেস! গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সংক্রমণের হার বাড়ল ৬.৭ শতাংশ

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ নতুন বছর শুরু হয়েছে সেই করোনার আতঙ্ককে সঙ্গে নিয়েই। দেশে করোনা সংক্রমণ ক্রমশ বেড়েই চলেছে। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা। ঊর্ধ্বমুখী অ্যাকটিভ কেসও। আবারও একবার তৃতীয় ঢেউয়ে বেসামাল দেশ। এদিকে, করোনার নতুন স্ট্রেনের দাপট রুখতে কেন্দ্রের পুরনো টেস্টিং এবং ট্রাকিং নীতিতেই আস্থা রাখছেন মোদী। পাশাপাশি জোর দিতে বলছেন টিকাকরণেও। এই মুহূর্তে দেশের একাধিক শহরে কড়া বিধিনিষেধ, নাইট কারফিউ। তবে, কড়া বিধিনিষেধ জারি এবং সতর্কতার পরেও কাজ হচ্ছে না। কিছুতেই কমছে সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় ফের একধাক্কায় অনেকটাই বাড়ল আক্রান্তের সংখ্যা। এই মুহূর্তে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা আড়াই লক্ষের বেশি। করোনার তৃতীয় ঢেউয়ে ফের বেসামাল দেশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২ লক্ষ ৬৪ হাজার ২০২ জন। যা আগের দিনের থেকে প্রায় ৬ শতাংশ বেশি। গতকাল আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২ লক্ষ ৪৭ হাজার ৪১৭ জন। আজ আক্রান্তের সংখ্যা একধাক্কায় অনেকটাই বাড়ল। যা রীতিমতো ভয় ধরাচ্ছে। শহরাঞ্চলের গণ্ডি পেরিয়ে গ্রামাঞ্চলেও বাড়ছে পজিটিভিটি রেট। স্বাস্থ্যমন্ত্রক বলছে, দেশের পটিজিভিটি রেট রাতারাতি বেড়ে হয়েছে ১৩.১১ শতাংশ। পজিটিভিটি রেট ১৪.৭৮ শতাংশ। এর মধ্যে ওমিক্রন সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে হল ৫ হাজার ৭৫৩। সবচেয়ে বেশি চিন্তায় ফেলেছে মহারাষ্ট্র, পশ্চিমবঙ্গ, দিল্লি তামিলনাড়ু ও কর্ণাটক। বৃহস্পতিবারই করোনা পরিস্থিতি নিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী। ওমিক্রন রুখতে স্থানীয় স্তরে কনটেনমেন্টে জোর দেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। পাশাপাশি কেন্দ্রের তরফে রাজ্যগুলিকে অক্সিজেন মজুত রাখার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।

এদিকে মারণ ভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে প্রাণ হারিয়েছেন ৩১৫ জন। এখনও পর্যন্ত করোনায় দেশে মোট মৃতের সংখ্যা ৪ লক্ষ ৮৫ হাজার ৩৫০ জন। অস্বস্তি বাড়াচ্ছে ঊর্ধ্বমুখী অ্যাকটিভ কেস।

সবথেকে উদ্বেগের বিষয় হল, বাড়ছে অ্যাকটিভ কেসও। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী, বর্তমানে দেশে করোনায় চিকিৎসাধীন রোগী ১২ লক্ষ ৭২ হাজার ৭৩ জন। পরিসংখ্যান বলছে, এখনও পর্যন্ত দেশে ৩ কোটি ৪৮ লক্ষ ২৪ হাজার ৭০৬ জন করোনা থেকে মুক্ত হয়েছেন। যার মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্ত হয়েছেন ১ লক্ষ ৯ হাজার ৩৪৫ জন।

https://twitter.com/ANI/status/1481833216080478209

সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়তে ৩ জানুয়ারি শুরু হয়েছে ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সিদের টিকাকরণ। পাশাপাশি ১০ জানুয়ারি শুরু হয়েছে ষাটোর্ধ্ব এবং ফ্রন্টলাইন যোদ্ধাদের প্রিকশন ডোজও। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য বলছে, এখনও পর্যন্ত দেশে প্রায় ১৫৫ কোটির বেশি ডোজ করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে গতকালই ৭৩ লক্ষ টিকার ডোজ পেয়েছেন দেশবাসী। টিকাকরণের পাশাপাশি জোর দেওয়া হচ্ছে টেস্টিংয়েও। গতকাল যেমন ১৭ লক্ষেরও বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়তে চলছে ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সিদের টিকাকরণ। শুরু হয়েছে ষাটোর্ধ্ব এবং ফ্রন্টলাইন যোদ্ধাদের প্রিকশন ডোজও। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য জানাচ্ছে, এখনও পর্যন্ত দেশে ১৫৫ কোটির বেশি ডোজ করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে গতকালই ৭৩ লক্ষ টিকার ডোজ পেয়েছেন দেশবাসী। টিকাকরণের পাশাপাশি জোর দেওয়া হচ্ছে টেস্টিংয়েও। গতকাল যেমন ১৭ লক্ষেরও বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।