গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে একধাক্কায় অনেকটাই বাড়ল করোনার দৈনিক সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যা

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে একধাক্কায় অনেকটাই বাড়ল করোনার দৈনিক সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যা
গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে একধাক্কায় অনেকটাই বাড়ল করোনার দৈনিক সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যা / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার পর, দেশে ঝড়ের গতিতে বাড়তে শুরু করেছিল করোনার সংক্রমণ। তবে, এখন দেশে করোনা পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। সংক্রমণ কমার পাশাপাশি বেড়েছে সুস্থতার হারও। দেশে করোনা দৈনিক সংক্রমণ অনেকদিন ধরেই ৫০ হাজারের নিচে রয়েছে। তবে, দেশে করোনা গ্রাফে ওঠানামা অব্যাহত রয়েছে। কখনও বাড়ছে দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা, আবার কখনও তা কমছে। গতকাল মৃতের সংখ্যা অনেকটা কমলেও, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনার দৈনিক সংক্রমণ একধাক্কায় অনেকটাই বাড়ল, সেই সঙ্গে বাড়ল দৈনিক মৃতের সংখ্যাও।

এরই মাঝে করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আশঙ্কায় গোটা দেশ আতঙ্কিত। তাই সংক্রমণ রুখতে তৎপর প্রশাসনও। একের পর এক ধর্মীয় সমাগম বাতিল করা হচ্ছে। প্রতিটি রাজ্যকে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে সংক্রমণের মোকাবিলায় আরও কড়া হওয়ার নির্দেশ দেওয়াও হয়েছে। পাশাপাশি পর্যটকদের ঘুরতে যাওয়ার উপরেও জারি হয়েছে বিধিনিষেধ। এরই মধ্যে দেশে করোনার দৈনিক সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যা ফের একধাক্কায় অনেকটাই বাড়ল।

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪২ হাজার ১৫ জন। এই সংখ্যা গতকালের থেকে অনেকটাই বেশি। গতকাল অর্থাৎ মঙ্গলবার দেশে দৈনিক করোনার সংক্রমণ ছিল ৩০ হাজার ৯৩ জন। যা কিনা গত ১২৫ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন। এখনও পর্যন্ত দেশে মোট কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৩ কোটি ১২ লক্ষ ১৬ হাজার ৩৩৭ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন ৩৯৯৮ জন। গতকালের তুলনায় দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর সংখ্যাও দশগুণ বেশি। গতকাল দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ছিল ৩৭৪। যা স্বাস্থ্য মন্ত্রকের বড় স্বস্তির জায়গা ছিল। কিন্তু গত ২৪ ঘণ্টায় তা এক লাফে দশগুণ বেড়ে যাওয়ায়, স্বাস্থ্য মন্ত্রকের জন্য উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই নিয়ে দেশে করোনায় মোট প্রাণ হারিয়েছেন মোট ৪ লক্ষ ১৮ হাজার ৪৮০ জন। এই মুহূর্তে দেশে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ৪ লক্ষ ৭ হাজার ১৭০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৩৬ হাজার ৯৭৭ জন। এখনও পর্যন্ত দেশে করোনাকে পরাস্ত করে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন মোট ৩ কোটি ৩ লক্ষ ৯০ হাজার ৬৮৭ জন। এখনও পর্যন্ত করোনা টিকা পেয়েছেন দেশের মোট ৪১ কোটি ৫৪ লক্ষ ৭২ হাজার ৪৫৫ জন।

সম্প্রতি কেন্দ্রের পক্ষ থেকে সতর্কতা জারি করে বলা হয়েছিল, করোনা মহামারী এখনও বিদায় নেয়নি। তাই একটু অসতর্ক হলেই বিপদ। সংক্রমণের গতি কমলেও, যে কোনও সময় তা আবারও চরম বিপদ ডেকে আনতে পারে। এই সতর্ক বার্তার পরেও করোনা নিয়ে সাধারণ মানুষের ঢিলেমি এবং দেশের বিভিন্ন পর্যটন স্থানে মানুষের ভিড় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের চিন্তা আরও বাড়িয়ে তুলেছে। বিশেষজ্ঞরা আরও বড় বিপদের আশঙ্কা করছেন, করোনা নিয়ে এমনটাই যদি ঢিলেমি চলতে থাকে। তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আগে অতি সতর্ক কেন্দ্র। গত সপ্তাহেই দক্ষিণ ভারতের ৬ রাজ্যের সঙ্গে বৈঠক করে তাদের সতর্ক করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কোনও কোনও রাজ্যে লকডাউন, কারফিউয়ের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।

করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আতঙ্ক যেমন রয়েছে, তেমনই আবার দেশের বিভিন্ন রাজ্যে মিলেছে করোনার একাধিক নতুন স্ট্রেনের সন্ধান। যার মধ্যে কাপ্পা ভ্যারিয়েন্টে বিধ্বস্ত রাজস্থান। তার একমাসের মধ্যে তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আতঙ্ক দানা বাঁধছে। সেই কারণেই আগামী ১০০-১২৫ দিন অত্যন্ত সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্র।