চোখে দেখতে পান না বলে চাকরি দেয়নি রেল, কঠোর পরিশ্রমে দেশের প্রথম দৃষ্টিহীন মহিলা IAS অফিসার এই কন্যে!

চোখে দেখতে পান না বলে চাকরি দেয়নি রেল, কঠোর পরিশ্রমে দেশের প্রথম দৃষ্টিহীন মহিলা IAS অফিসার এই কন্যে!
চোখে দেখতে পান না বলে চাকরি দেয়নি রেল, কঠোর পরিশ্রমে দেশের প্রথম দৃষ্টিহীন মহিলা IAS অফিসার এই কন্যে!

ইচ্ছেশক্তির জয়! কথায় বলে, মনের জোর আর ইচ্ছে থাকলে যে কোনও অসম্ভবকেই সম্ভব করে তোলা যায়৷ সে কথাই যেন ফের প্রমাণ করলেন এই কন্যে! মহারাষ্ট্রের উল্লাসনগরের কন্যা প্রাঞ্জল পাতিল। তিনি দৃষ্টিহীন, অন্ধ। চোখে দেখতে পান না বলে চাকরি দেয়নি রেল। কিন্তু কঠোর পরিশ্রম ও ইচ্ছেশক্তির জোরে তিনি আজ হয়ে উঠেছেন দেশের প্রথম দৃষ্টিহীন মহিলা IAS অফিসার৷ তাঁর এই কাহিনী অনুপ্রাণিত করেছে হাজারও মানুষকে।

মহারাষ্ট্রের উল্লাস নগরের বাসিন্দা প্রাঞ্জলের জন্ম থেকেই দৃষ্টিশক্তি বেশ দুর্বল ছিল। মাত্র ৬ বছর বয়সেই সম্পূর্ণ অন্ধ হয়ে যান তিনি। কিন্তু তিনি হাল ছাড়েননি। অদম্য সাহসে ভর করেই পড়াশোনা চালিয়ে যেতে থাকেন প্রাঞ্জল। সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ থেকে পলিটিক্যাল সায়েন্সে গ্রাজুয়েশন করে JNU থেকে তিনি মাস্টার ডিগ্রিও লাভ করেন তিনি। এখানেই শেষ নয়! এরপর Mphil ও PhD ও সম্পূর্ণ করেন। তারপরই সিভিল সার্ভিসে যোগদান করার সিন্ধান্ত নেন প্রাঞ্জল।

চোখে দেখতে পান না বলে চাকরি দেয়নি রেল, কঠোর পরিশ্রমে দেশের প্রথম দৃষ্টিহীন মহিলা IAS অফিসার এই কন্যে!
চোখে দেখতে পান না বলে চাকরি দেয়নি রেল, কঠোর পরিশ্রমে দেশের প্রথম দৃষ্টিহীন মহিলা IAS অফিসার এই কন্যে!

সেই মতো UPSC-এর জন্য প্রস্তুতিও শুরু হয়ে যায়৷ কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে সকলকে অবাক করে প্রথমবারের চেষ্টাতেই সফল হন প্রাঞ্জল। UPSC-তে সারা দেশের মধ্যে ৭৭৩ র‍্যাঙ্ক করেন তিনি। এরপর Indian Railways Accounts committee-তে চাকরির উদ্দেশ্যে ইন্টারভিউয়ে যান তিনি। কিন্তু ভাগ্য তখন সহায় ছিল না প্রাঞ্জলের। দৃষ্টিহীন হওয়ার কারণে তাঁকে চাকরি থেকে বাতিল করে দেয় রেল কর্তৃপক্ষ।

কিন্তু থেমে থাকার পাত্রী যে তিনি নন! ফের অদম্য উদ্যোমে লড়াই শুরু হয় প্রাঞ্জলের। একটি মাত্র সফটওয়্যারের সাহায্যে বইয়ের পড়া শুনে শুনেই ফের শুরু হয় পরীক্ষার প্রস্তুতি। ২০১৭ সালে ফের UPSC পরীক্ষা দেন প্রাঞ্জল৷ আর তারপর? দেশের সেরা ১৫০ জনের মধ্যে জায়গাকরে দেন তিনি। এবারে তাঁর র‍্যাঙ্ক আসে ১২৪। ব্যস! আর কী! অদম্য ইচ্ছেশক্তির জোরেই IAS হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হয় তাঁর। দৃষ্টিহীন হয়েও নিজের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের দিকে এক ধাপ এগিয়ে যান প্রাঞ্জল। হয়ে ওঠেন ভারতের প্রথম অন্ধ মহিলা IAS অফিসার।

চোখে দেখতে পান না বলে চাকরি দেয়নি রেল, কঠোর পরিশ্রমে দেশের প্রথম দৃষ্টিহীন মহিলা IAS অফিসার এই কন্যে!
চোখে দেখতে পান না বলে চাকরি দেয়নি রেল, কঠোর পরিশ্রমে দেশের প্রথম দৃষ্টিহীন মহিলা IAS অফিসার এই কন্যে!

বর্তমানে কেরালার তিরুবন্তপুরমে সাব-কালেক্টর পদে কর্মরত প্রাঞ্জল। তাঁর এই কাহিনী যেন আমাদের প্রতিনিয়ত অনুপ্রেরণা যোগায়৷ দৃষ্টিহীন এই কন্যে ফের যেন প্রমাণ করলেন, যতই বাধাবিপত্তি আসুক, জেদ এবং মানসিকতার জোরে সব বাধা অতিক্রম করেই এগিয়ে চলা সম্ভব। নিজের হাতেই গড়া সম্ভব নিজের ভবিষ্যৎ। দৃষ্টিহীনতার অন্ধকার জগতেও তখন এসে লাগে অপার্থিব কোনও আলো। সে আলোর জোরেই আগামী হয়ে ওঠে আরও উজ্জ্বল। আরও সুন্দর। প্রাঞ্জলের এই অদম্য জেদকে কুর্নিশ জানাচ্ছেন নেটিজেনরাও।