বৃহস্পতিবার, ২৬ মে, ২০২২

‘নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ আমাদের বলির পাঁঠা করছেন’! বিস্ফোরক দাবি নিহত কাশ্মীরি পণ্ডিতের স্ত্রী’র

আত্রেয়ী সেন

প্রকাশিত: মে ১৩, ২০২২, ০৪:৩৪ পিএম | আপডেট: মে ১৩, ২০২২, ০৪:৩৪ পিএম

‘নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ আমাদের বলির পাঁঠা করছেন’! বিস্ফোরক দাবি নিহত কাশ্মীরি পণ্ডিতের স্ত্রী’র
‘নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ আমাদের বলির পাঁঠা করছেন’! বিস্ফোরক দাবি নিহত কাশ্মীরি পণ্ডিতের স্ত্রী’র

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ সদ্য সদ্য জঙ্গি হানায় নিহত হয়েছেন কাশ্মীরের বদগাঁও-এর এক সরকারি কর্মী তথা কাশ্মীরি পণ্ডিত রাহুল ভাট। সেই ঘটনার পর থেকেই উত্তপ্ত কাশ্মীর। এবার সরাসরি এই ঘটনায় দেশের প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উপর দায় চাপালেন নিহতের স্ত্রী। তাঁর স্পষ্ট দাবি, কাশ্মীরি পণ্ডিতদের বলির পাঁঠা করছে কেন্দ্রের সরকার। তাঁদের রাজনীতির অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। নিহত রাহুল ভাটের স্ত্রী সরাসরি চ্যালেঞ্জ জানিয়েছেন মোদী-শাহকে। তিনি বলেন, সাহস থাকলে, কোনরকম নিরাপত্তা ছাড়াই কাশ্মীরে ঘুরে দেখান তাঁরা। 

বৃহস্পতিবার কাশ্মীরের কাশ্মীরের বদগাঁও-এর এক সরকারি অফিসে ঢুকে রাহুল ভাট নামে এক কাশ্মীরি পণ্ডিতকে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে গুলি করে খুন করে জঙ্গিরা। এই ঘটনায় রীতিমতো উত্তপ্ত এলাকা। শুক্রবার সকাল থেকে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। এদিন সকালে রাহুল ভাটের মৃতদেহ জম্মুর দুর্গানগরের বাড়িতে পৌঁছতেই পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন কাশ্মীরি পণ্ডিতরা। তাঁদের পক্ষ থেকে দাবি তোলা হয় যে, প্রশাসনের উদাসীনতার কারণেই নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতে হচ্ছে তাঁদের।

বিক্ষোভে পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছোঁড়া হয় বলেও খবর। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে যায় এক সময় যে, রাহুল ভাটের শেষকৃত্য করতে পুলিশকে কাঁদানে গ্যাসের শেলও ফাটাতে হয়। রাহুল ভাটের এই খুনের ঘটনায় ফুঁসছে কাশ্মীরি পণ্ডিতরা। তাঁরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন। বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে তাঁরা ক্ষুব্ধ। 

এদিকে, রাহুল ভাটের স্ত্রী এই ঘটনার জন্য প্রধানমন্ত্রী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে কাঠগড়ায় তুলে বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ আমাদের বলির পাঁঠা করছেন। কাশ্মীরি পণ্ডিতদের ওরা রাজনীতির হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার করছে। আমি ওঁদের চ্যালেঞ্জ করছি সাহস থাকলে কাশ্মীরে এসে নিরাপত্তারক্ষী ছাড়া ঘুরে দেখান। এখানে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের নৃশংসভাবে খুন করা হচ্ছে আর গোটা দেশ নীরব। প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মুখে এক কথা বলেন, আর কাজে আরেকরকম করেন।’