শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৩

প্রধানমন্ত্রী মোদীর ‘পরীক্ষা পে চর্চা’ য় অংশগ্রহণ করতে আগ্রহী ১৫৫ দেশের ৩৮ লাখের বেশি শিক্ষার্থী!

আত্রেয়ী সেন

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৫, ২০২৩, ১০:১০ এএম | আপডেট: জানুয়ারি ২৫, ২০২৩, ১০:১০ এএম

প্রধানমন্ত্রী মোদীর ‘পরীক্ষা পে চর্চা’ য় অংশগ্রহণ করতে আগ্রহী ১৫৫ দেশের ৩৮ লাখের বেশি শিক্ষার্থী!
প্রধানমন্ত্রী মোদীর ‘পরীক্ষা পে চর্চা’ য় অংশগ্রহণ করতে আগ্রহী ১৫৫ দেশের ৩৮ লাখের বেশি শিক্ষার্থী!

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ প্রধানমন্ত্রীর ‘পরীক্ষা পে চর্চা’ য় অংশগ্রহণের জন্য চলতি বছরে ৩৮ লক্ষ শিক্ষার্থীর নাম নিবন্ধিত হয়েছে। উল্লেখ্য, প্রতি বছরই পড়ুয়াদের মধ্যে পরীক্ষা নিয়ে ভীতি এবং পরীক্ষার চাপ সংক্রান্ত সমস্যা নিয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এবারেও তার অন্যথা হবে না। এই প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান জানিয়েছেন যে, গত বছরের তুলনায় এই বছরে ‘পরীক্ষা পে চর্চা’ য় অংশগ্রহণ করতে ১৫ লক্ষ বেশি ছাত্র-ছাত্রী আগ্রহ দেখিয়েছে। জানা গিয়েছে, ২৭ জানয়ারি নয়া দিল্লির তালকাটোরা ইন্ডোর স্টেডিয়ামে এই অনুষ্ঠান হবে।

এই অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে এক সাংবাদিক সম্মেলনে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন যে, ‘পরীক্ষা পে চর্চায় অংশগ্রহণের জন্য এই বছর ৩৮ লক্ষেরও বেশি শিক্ষার্থীর নাম নিবন্ধিত হয়েছে। এর মধ্যে ১৬ লক্ষেরও বেশি শিক্ষার্থী রাজ্য বোর্ডের। পিপিসি ২০২২-এর তুলনায় সংখ্যাটা দ্বিগুণ বেশি। ১৫৫টি দেশ থেকে নাম নিবন্ধন করা হয়েছে।’

কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান আরও বলেছেন যে, ‘পরীক্ষা পে চর্চা, গত কয়েক বছরে একটি গণআন্দোলনের রূপ নিয়েছে। শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ যেভাবে বেড়েছে, সেটাই এর প্রমাণ। অনন্য এবং জনপ্রিয় উদ্যোগটি শিক্ষার্থীদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে, তাদের মানসিক চাপ মোকাবিলা করতে এবং সুস্থ ও ফিট থাকতে সাহায্য করেছে। প্রায় ২,৪০০ শিক্ষার্থী তালকাটোরা স্টেডিয়ামে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে উপকৃত হবে। একই সময়ে, কোটি কোটি শিক্ষার্থী তাদের নিজ নিজ স্কুল থেকে সরাসরি অনুষ্ঠানটি দেখবে।’ এর পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন যে, এনসিইআরটির কলা উৎসব প্রতিযোগিতার ৮০ জন বিজয়ী এবং সারা দেশ থেকে ১০২ জন ছাত্র-ছাত্রী এবং শিক্ষক-শিক্ষিকারা বিশেষ অতিথি হিসাবে এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন।

এখানেই শেষ নয়, ধর্মেন্দ্র প্রধান জানিয়েছে যে, ‘অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের আমাদের সমৃদ্ধ ঐতিহ্যের সঙ্গে পরিচয় করানোর লক্ষ্যে রাজঘাট, সদৈব অটল, প্রধানমন্ত্রীর জাদুঘর, কর্তব্য পথের মতো গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলিতে নিয়ে যাওয়া হবে। কলা উৎসবের বিজয়ী এবং নির্বাচিত ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকরা ২৬ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজ এবং ২৯ জানুয়ারি বিটিং রিট্রিটও দেখবেন।’

অন্যদিকে, কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, নেতাজি সুভাসচন্দ্র বসুর জন্মবার্ষিকীতে সারা দেশের ৫০০ টি জেলায় একটি চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছিল। ওই প্রতিযোগিতার থিম ছিল প্রধানমন্ত্রীর ‘এক্সাম ওয়ারিয়র্স’ বইতে দেওয়া মন্ত্রসমূহ। ধর্মেন্দ্র প্রধান জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রীর এই বইটির অসাধারণ সাফল্য বিবেচনা করেই, বইটিকে ১১টি ভারতীয় ভাষায় প্রকাশ করা হচ্ছে। অসমীয়া, বাংলা, গুজরাটি, কন্নড়, মালয়ালম, মারাঠি, ওড়িয়া, পঞ্জাবি, তামিল, তেলেগু এবং উর্দু ভাষাতেও এই বই অনুবাদ করা হয়েছে। কাজেই এই ভাসাগুলিতেও বইটি পাওয়া যাবে।