রবিবার, ০২ অক্টোবর, ২০২২

‘অশান্তি সৃষ্টির জন্য দায়ী তিনিই, দেশে কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত’! সুপ্রিম কোর্টে ভর্ৎসিত নূপুর শর্মা

আত্রেয়ী সেন

প্রকাশিত: জুলাই ১, ২০২২, ১২:২২ পিএম | আপডেট: জুলাই ১, ২০২২, ১২:৩০ পিএম

‘অশান্তি সৃষ্টির জন্য দায়ী তিনিই, দেশে কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত’! সুপ্রিম কোর্টে ভর্ৎসিত নূপুর শর্মা
‘অশান্তি সৃষ্টির জন্য দায়ী তিনিই, দেশে কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত’! সুপ্রিম কোর্টে ভর্ৎসিত নূপুর শর্মা

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বিজেপি নেত্রী নূপুর শর্মাকে এবার সুপ্রিম কোর্টে তিরস্কারের মুখে পড়তে হল। তাঁর মন্তব্যের জন্য গোটা দেশের কাছে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে বলল সুপ্রিম কোর্ট। সেই সঙ্গে দেশে যে অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে, তার জন্যও তাঁকেই দায়ী করল দেশের শীর্ষ আদালত।এখানেই শেষ নয়, আদালতের পর্যবেক্ষণ নূপুর শর্মা নিজের বক্তব্যের জন্য অনেক দেরিতে ক্ষমা চেয়েছেন। 

নিজের বিরুদ্ধে দায়রে হওয়া মামলার বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন বিজেপি নেত্রী নূপুর শর্মা। হজরত মহম্মদ ইস্যুতে তাঁর বিতর্কিত মন্তব্যের বিরুদ্ধে দেশের একাধিক রাজ্যে এফআইআর দায়ের হয়েছে। এমনকি কলকাতাতেও দুটি থানায় অভিযোগ জমা পড়েছে। তারই জন্য নিজের প্রাণহানির আশঙ্কার কথা জানিয়ে, দেশের শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন নূপুর শর্মা। এদিন সেই মামলাতেই তাঁকে সুপ্রিম কোর্টে তিরস্কারের মুখোমুখি হতে হল। 

এদিন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি সূর্যকান্ত বলেন, ‘আমরা ওই বিতর্কসভাটি দেখেছি। যে ভাবে তিনি কথাগুলো বলেছেন তা-ও দেখেছি। আপনি নিজে এক জন আইনজীবী হয়ে, এরকম করেছেন যা লজ্জার। আপনার উচিত সারা দেশের কাছে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়া।’ সেই সঙ্গে বিচারপতির পর্যবেক্ষণ নূপুর শর্মা দেশের মানুষের ধর্মীয় ভাবাবেগকে আঘাত করেছেন।

নূপুর শর্মা তাঁর বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া সব এফআইআর দিল্লিতে স্থানান্তর করার আরজি জানিয়েছিলেন সুপ্রিম কোর্টে। তাঁর আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টে জানান যে, নূপুর শর্মাকে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এই কথা শুনে বিচারপতি বলেন, ‘তিনি হুমকির মুখে পড়েছেন, নাকি তিনিই নিরাপত্তার জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছেন! তিনি দেশে অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি করেছেন। আজ দেশজুড়ে যা চলছে, তার নেপথ্যে দায়ী শুধুমাত্র তিনিই।’ সেই সঙ্গে নেত্রীর আরজি শুনতেও অস্বীকার করেছে সুপ্রিম কোর্ট। এর পাশাপাশি দিল্লি পুলিশকেও ভর্ৎসনা করেছে শীর্ষ আদালত। 

প্রসঙ্গত, গত ২৬ মে একটি টিভি-ডিবেটে নেমে হজরত মহম্মদ ইস্যুতে আপত্তিজনক মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ান বিজেপির জাতীয় মুখপাত্র নূপুর শর্মা। এর দু‍‍দিন পরে একই বিষয়ে টুইট করেন দিল্লি বিজেপির মুখপাত্র নবীন জিন্দল। সেই মন্তব্যের জেরে এক সপ্তাহ পরে ইসলামিক দুনিয়ার একটা বৃহৎ অংশ ভারতের কড়া নিন্দা করে বয়কটের হুমকি দেয়। সে দিনই দলীয় ভাবে ‘সহিষ্ণুতার’ বার্তা দিয়ে নূপুর-নবীনকে ছ‍‍‍‍`বছরের জন্য সাসপেন্ড করে বিজেপি। শুধু দেশেই নয়, নূপুরের মন্তব্যের জেরে আন্তর্জাতিক স্তরেও নিন্দার মুখে পড়তে হয় দেশকে। বাংলাদেশ, আরব আমিরশাহী-সহ বিশ্বের একাধিক দেশ ধিক্কার জানায় প্রাক্তন বিজেপি মুখপাত্রকে। এদিকে, তাঁর মন্তব্যকে কেন্দ্র করে দেশের একাধিক শহরে অশান্তি ছড়ায়। তাঁর মন্তব্যে অশান্তি ছড়ানোয় দায়ে দায়ের হয় এফআইআর।