শীঘ্রই কমছে ট্রেনের ভাড়া, অগ্রিম কাটা টিকিটের টাকা কি ফেরত হবে? কী বলছে রেল?

শীঘ্রই কমছে ট্রেনের ভাড়া, অগ্রিম কাটা টিকিটের টাকা কি ফেরত হবে? কী বলছে রেল?
শীঘ্রই কমছে ট্রেনের ভাড়া, অগ্রিম কাটা টিকিটের টাকা কি ফেরত হবে? কী বলছে রেল?

করোনা আবহে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল লোকাল বা এক্সপ্রেস সমস্ত ট্রেন চলাচল। তবে লকডাউন পরবর্তী সময়ে কিছু প্যাসেঞ্জার, মেল ও এক্সপ্রেস ট্রেন স্পেশাল ট্রেনের তকমা দিয়ে চালানো শুরু হয়। ফলে টিকিটের মূল্যও বৃদ্ধি পেয়েছিল। সাধারণের তুলনায় প্রায় ৩০ শতাংশ বেড়ে গিয়েছিল টিকিটের ভাড়া৷ মূলত ভীড় এড়ানোর জন্যই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছিল ভারতীয় রেল।

বর্তমানে ট্রেন চলাচল ফের আগের মতোই স্বাভাবিক হয়ে গিয়েছে। ফলে স্পেশাল ট্রেনের তকমা মুছে পূর্বের মতো সাধারণভাবে প্যাসেঞ্জার, মেল এবং এক্সপ্রেস ট্রেন চালাতে উদ্যোগী ভারতীয় রেল। যে কারণে আগের মূল্য অনুযায়ীই টিকিটের ভাড়া হতে চলেছে। অর্থাৎ এক ধাক্কায় ৩০ শতাংশ কমতে চলেছে ট্রেনের ভাড়া। এই প্রসঙ্গে রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব জানিয়েছেন, “ইতিমধ্যেই ৭৫% এক্সপ্রেস ট্রেনের ক্ষেত্রে এই স্পেশাল তকমা মুছে ফেলা হয়েছে। বাকি যে ২৫% স্পেশাল ট্রেন রয়েছে সেগুলো আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই আগের মতো সাধারণ হিসেবে চলবে।”

তবে এরপরই প্রশ্ন উঠছে, যে সমস্ত যাত্রীরা আগাম টিকিট বুক করে রেখেছিলেন, ভাড়া কমলে তাঁরা কি সেই বাড়তি টাকা ফেরত পাবেন? এ বিষয়েও এবার নিজেদের জবাব স্পষ্ট করে দিল ভারতীয় রেল। রেলের তরফে জানানো হয়েছে, যে সমস্ত যাত্রীরা ইতিমধ্যেই অগ্রিম টিকিট কেটেছেন, তাঁদের টাকা ফেরত দেওয়া হবে না। আগে থেকে টিকিট বুক করার পর ভাড়া বৃদ্ধি পেলে যেমন বাড়তি টাকা নেওয়া হয় না, তেমনই ভাড়া কমলেও অগ্রিম বুকিংয়ের ক্ষেত্রে বাড়তি টাকা ফেরত দেওয়ার প্রশ্ন নেই।

প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যেই বেশ কিছু ট্রেনের স্পেশাল তকমা উঠে গিয়ে পূর্বের মতো চলছে ট্রেন। কিন্তু সে সমস্ত ট্রেনের সেই তকমা এখনও ওঠেনি, সেই ট্রেনগুলি কবে স্পেশাল থেকে সাধারণ ভাবে চলবে তা এখনও জানা যায়নি। যদিও রেলের তরফে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে, খুব শীঘ্রই স্পেশাল তকমা উঠে সেই ট্রেনগুলি চলাচলও স্বাভাবিক হয়ে যাবে।