অনুব্রতর সঙ্গে মধ্যাহ্নভোজ! তৃনমূলে যোগ দিচ্ছেন পরমব্রত? কী জানালেন অভিনেতা?

অনুব্রতর সঙ্গে মধ্যাহ্নভোজ! তৃনমূলে যোগ দিচ্ছেন পরমব্রত? কী জানালেন অভিনেতা?
অনুব্রতর সঙ্গে মধ্যাহ্নভোজ! তৃনমূলে যোগ দিচ্ছেন পরমব্রত? কী জানালেন অভিনেতা?

বীরভূমের দাপুটে তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে আচমকাই সাক্ষাৎ অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের। শুধু তাই নয়, নেতার সঙ্গে দেড় ঘণ্টার বৈঠক শেষে মধ্যাহ্নভোজনও সারেন অভিনেতা। এরপরই জোর জল্পনা শুরু, তবে কি তৃণমূলে যোগ দিতে চলেছেন পরমব্রত? এবার কি জোড়াফুলে দেখা যাবে অভিনেতাকে? তবে এ বিষয়ে তাঁর সাফ জবাব, তিনি কোনও দলে যোগ দিচ্ছেন না। এটা নেহাতই সৌজন্য সাক্ষাৎ।

শুক্রবার আচমকাই বোলপুরের সার্কিট হাউসে হাজির হন অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। সেখানে তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল ছাড়াও ছিলেন বীরভূমের জেলাশাসক বিধান রায়, পুলিস সুপার নগেন্দ্র ত্রীপাঠি, লাভপুরের বিধায়ক অভিজিৎ সিংহ,বোলপুরের এসডিপিও অভিষেক রায় ও মহম্মদবাজার থানার ওসি মহম্মদ আলি। তাঁদের সকলের সঙ্গেই দেখা করে বৈঠক সারেন অভিনেতা। তারপরই দুপুরের খাবারও খান সেখানে। এ নিয়েই রাজনৈতিক মহলে আলোচনা তুঙ্গে৷

যদিও সার্কিট হাউস থেকে বেরোনোর পর পরমব্রত জানান, ”এদিকে ব্যক্তিগত কাজে এসেছিলাম। তাই শুধুমাত্র সৌজন্য সাক্ষাতের জন্য এখানে এলাম। এক সঙ্গে খাওয়া-দাওয়া হল, কুশল বিনিময় হল।” তৃণমূলে যোগ দেওয়া নিয়ে তাঁকে প্রশ্ন করা হলে অভিনেতা জানান, “এটা শুধুই সৌজন্য সাক্ষাৎ। আমার রাজনৈতিক মতামত রয়েছে তবে তার সঙ্গে রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার সম্পর্ক নেই। আমার রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার জল্পনা নেই, না যোগ দেওয়ার জল্পনাও নেই। আমার সরাসরি রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার কোনও ভাবনাই নেই।” তবে এদিন কী বিষয়ে বৈঠক হলো তা নিয়ে মুখ খোলেননি কেউই।