শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন দেখার দায়িত্ব পুলিশের! পাল্টা দাবি দিলীপ ঘোষের

শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন দেখার দায়িত্ব পুলিশের! পাল্টা দাবি দিলীপ ঘোষের
শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন দেখার দায়িত্ব পুলিশের! পাল্টা দাবি দিলীপ ঘোষের

পুলিশের অনুমতির দরকার নেই। আন্দোলন যাতে ঠিকঠাক হয় সে জন্য পুলিশকে ইনফরমেশন দেওয়া হয়েছে। বিজেপির পুরসভা অভিযান নিয়ে এমনটাই জানালেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। পাশাপাশি তাঁর আরও দাবি,”শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন এটা দেখার দায়িত্ব পুলিশের”।

কসবার ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডে উত্তাল রাজ্য রাজনীতি। এই ঘটনার প্রতিবাদে সোমবার কলকাতা পুরসভা ঘেরাওয়ের ডাক দিয়েছে বিজেপি। তবে এই অভিযানের অনুমতি দিল না কলকাতা পুলিশ। বিজেপিকে কলকাতা পুলিশের ডিসি সেন্ট্রালের তরফে চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে বর্তমান অতিমারি পরিস্থিতিতে এইধরনের কোনো রকম রাজনৈতিক জামায়াতের অনুমতি দেওয়া হবে না।

এই প্রসঙ্গে আজ সকালে দিলীপ ঘোষ বলেন, “পুলিশের পারমিশন এর দরকার নেই,আন্দোলন করার জন্য, আন্দোলন যাতে ঠিকঠাক হয় সে জন্য পুলিশকে ইনফরমেশন দেওয়া হয়েছে শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন এটা দেখার দায়িত্ব পুলিশের।”

একইসঙ্গে পুলিশ দ্বিচারিতা করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। বলেন, “টিএমসির জন্য কোন আইন নেই, কোন সংবিধান নেই, কোন কোর্ট নেই। সেখানে কেন্দ্রীয় সুরক্ষা বাহিনীকে ইটপাটকেল মারা হয়েছিল সেসব দৃশ্য আমরা দেখেছি ,হাঙ্গামা করা হয়েছিল কিন্তু কারো নামে এফআইআর হয়নি। সেখানে কোন আইন ভাঙা হয়নি, এই যে স্বৈরাচারী শাসন চলছে তার পরিণাম এটা”।

এরপরেই ফের ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডে সরব হয়ে তাঁর অভিযোগ, “আজকে লোকজন ভয়ের মধ্যে আছে ভ্যাকসিন নিয়ে। রাজনীতি চলছে এ ধরনের চুরি চলছে। মানুষ এতে ক্ষুব্ধ হবে, মানুষের ক্ষোভ মানুষের অসন্তোষ সেটাকে তুলে ধরা বিরোধীপক্ষের কাজ যে জন্য আমরা আজ আন্দোলনের ঘোষণা করেছি”। তবে এই আন্দোলন একেবারেই শান্তিপূর্ণ প্রতীকী আন্দোলন হবে বলে দাবি করেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি।

অন্যদিকে, পুলিশ বাঁধা দিলে আইনশৃঙ্খলার অবনতি হবে বলেই মন্তব্য করেছেন তিনি। তাঁর কথায়, “এটা পুলিশের কাজ পুলিশ করবে। আর যদি পুলিশ চায় বেশি বাড়াবাড়ি হোক আইনশৃঙ্খলার অবনতি হোক তারা অনেক কিছুই করতে পারে তার পরিণাম তো ওদেরকেই ভুগতে হবে, আমরা বিরোধী পার্টি আমাদের অধিকার আছে আন্দোলন করার মানুষের সমস্যা তুলে ধরার, শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন করবো আমরা ঘোষণা করেছি বাকি পুলিশের হাতে”।