‘মনে হয়েছিল কেরিয়ারই শেষ’! বিশ্বরেকর্ডে নাম তুলে অশ্বিন জানালেন নিজের এই আতঙ্কের কথা

'মনে হয়েছিল কেরিয়ারই শেষ'! বিশ্বরেকর্ডে নাম তুলে অশ্বিন জানালেন নিজের এই আতঙ্কের কথা
'মনে হয়েছিল কেরিয়ারই শেষ'! বিশ্বরেকর্ডে নাম তুলে অশ্বিন জানালেন নিজের এই আতঙ্কের কথা

কানপুর টেস্টের পঞ্চম তথা শেষ দিনে মাঠে নেমেই অনন্য নজির গড়েছেন ভারতীয় স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন। এদিন টম লাথামের উইকেট তুলে নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই বিশ্বরেকর্ডে নাম তুলে ফেলেছেন তিনি। টেস্ট ক্রিকেটে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারীদের তালিকায় তিন নম্বরে উঠে এলেন অশ্বিন। নিজের ৮০ তম টেস্টে ৪১৮টি উইকেট নিয়ে তিনি পিছনে ফেলে দিয়েছেন হরভজন সিংকে৷ অশ্বিনের সামনে এখন শুধু কপিল দেব এবং অনিল কুম্বলে।

তবে বিশ্বরেকর্ড গড়া অশ্বিনের মধ্যেও ছিল অন্য এক আতঙ্ক। তিনি যে আর মাঠে নামতে পারবেন এই বছরের শুরুতে সেই আশাই আর রাখেননি ভারতীয় অফ স্পিনার। ভেবেছিলেন নিজের কেরিয়ার প্রায় শেষের পথে৷ সম্প্রতি বিসিসিআইয়ের ওয়েবসাইটে সতীর্থ শ্রেয়াস আইয়ারকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নিজেই এ কথা স্বীকার করলেন অশ্বিন।

'মনে হয়েছিল কেরিয়ারই শেষ'! বিশ্বরেকর্ডে নাম তুলে অশ্বিন জানালেন নিজের এই আতঙ্কের কথা
‘মনে হয়েছিল কেরিয়ারই শেষ’! বিশ্বরেকর্ডে নাম তুলে অশ্বিন জানালেন নিজের এই আতঙ্কের কথা

অশ্বিনকে বলতে শোনা গিয়েছে, “সত্যি বলতে, করোনা মহামারী এবং লকডাউনের মধ্যে গত কয়েক বছর ধরে আমার জীবনে এবং কেরিয়ারে যা কিছু ঘটছিল, আমার ধারণা ছিল না যে আর কোনও দিন টেস্ট খেলা হবে। আমি আবার ক্রিকেট খেলব কি না তা ভাবতেই পারিনি। ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ক্রাইস্টচার্চে শেষ টেস্ট খেলেছিলাম। এরপর আমার ভবিষ্যত কি বা আমি আর টেস্ট দলে জায়গা পাব কি না, সে সব ভাবনাই মাথায় ছিল। ঈশ্বরকে ধন্যবাদ যে এখন পরিস্থিতি সম্পূর্ণ পাল্টে গেছে।”

একইসঙ্গে হরভজনের রেকর্ড ভাঙার প্রসঙ্গে অশ্বিন বলেন, ভাজ্জিই তাঁকে অফ-স্পিন বোলিং করতে অনুপ্রাণিত করেছিলেন। তামিলনাড়ুর এই অফ স্পিনারের কথায়, ২০০১ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে হরভজনের পারফরম্যান্স দেখেই তিনি অফ স্পিনার হওয়ার অনুপ্রেরণা পান। অশ্বিন জানিয়েছেন, “ভাজ্জির কাছ থেকেই অনুপ্রেরণা নিয়ে আমি অফ-স্পিন বোলিং শুরু করে আজ এখানে পৌঁছেছি। ধন্যবাদ, ভাজ্জি পা আমাকে অনুপ্রাণিত করার জন্য। এটা আমার জন্য গর্বের বিষয় যে আমি এই মাঠে আমার ২০০তম উইকেট নিয়েছি এবং এই মাঠেই হরভজনের রেকর্ড পেরিয়েছি। এটা এক কথায় আমার কাছে বিস্ময়কর।”