মমতার সমর্থনে আজ থেকে নির্বাচনী প্রচার শুরু বাংলার ‘ধন্যি মেয়ে’ জয়া বচ্চনের

মমতার সমর্থনে আজ থেকে নির্বাচনী প্রচার শুরু বাংলার 'ধন্যি মেয়ে' জয়া বচ্চনের
মমতার সমর্থনে আজ থেকে নির্বাচনী প্রচার শুরু বাংলার 'ধন্যি মেয়ে' জয়া বচ্চনের

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ এবার বাংলার একুশের নির্বাচনে চমকের শেষ নেই। এবার সেই তালিকায় নয়া সংযোজন তৃণমূলের হয়ে প্রচারে এসেছেন বাংলার মেয়ে অভিনেত্রী তথা রাজ্যসভার সাংসদ জয়া বচ্চন। জয়া বচ্চন সমাজবাদী পার্টির রাজ্যসভার সদস্যও।

‘বাংলার নিজের মেয়ে’। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে এটাই রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলের ক্যাচলাইন। ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’ এই স্লোগান তুলে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সামনে রেখে, একুশের মহা ভোটসমরে জয় ছিনিয়ে নিতে চাইছে তৃণমূল। সেই লক্ষ্যে বাংলার আর এক মেয়েকেই প্রচারে রাজ্যে নিয়ে এসেছে তৃণমূল। তিনি আর কেউ নন, অমিতাভজায়া জয়া বচ্চন।

আজ থেকেই ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে, প্রচারে নামবেন বাংলার ‘ধন্যি মেয়ে’ জয়া বচ্চন। তৃণমূলে সূত্রে খবর, আজ দুপুর তিনটে নাগাদ তৃণমূল ভবনে, সাংবাদিক সম্মেলন করবেন অভিনেত্রী তথা রাজ্যসভার সাংসদ। এরপর বিকেল ৫ টা নাগাদ টালিগঞ্জ থেকে অরূপ বিশ্বাসের হয়ে নির্বাচনী প্রচার করবেন। অরুপ বিশ্বাসের হয়ে জিপে চেপে রোড শো করবেন জয়া তেমনটাই তৃণমূল সূত্রের খবর। যে টালিগঞ্জ থেকে একদিন তিনি তাঁর অভিনয়ের কেরিয়ার শুরু করেছিলেন, আজ সেখান থেকেই বিধানসভা নির্বাচনের প্রচার শুরু করবেন বচ্চন ঘরণী। সেই টলিপাড়া দিয়েই এগিয়ে চলবে জয়ার প্রচার গাড়ি। যার বিরুদ্ধে জয়া বচ্চনকে প্রচার করতে হবে আজ, তিনিও বলিউডের-টলিউডেরই আর এক সদস্য। শুধু তাই নয়, তিনি অপরদিকে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী, বাবুল সুপ্রিয়। তবে, জয়া বচ্চন ঘনিষ্ঠমহলে জানিয়েছেন এটা রাজনৈতিক লড়াই। এর সঙ্গে ব্যক্তিগত সম্পর্কের কোনও জায়গা নেই।

রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, বাংলার নিজের মেয়ের প্রচারে, এবারে বাংলার আর এক মেয়েই কোমর বেঁধে নামছেন প্রচারে। উল্লেখ্য, একুশের নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত শক্ত করতে তাঁকে অনেক আগেই সমর্থন জানিয়েছিল সমাজবাদী পার্টি। সেই সমর্থনের ভিত্তিতেই এবার বাংলার মেয়ের পাশে দাঁড়ালেন বাংলার আর এক মেয়ে জয়া।

আজ কলকাতা থেকেই প্রচার শুরু হচ্ছে জয়া বচ্চনের। আগামী ৪ দিন তিনি লাগাতার প্রচার চালিয়ে যাবেন। তবে, প্রচার শুরু করার আগে, আজ তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক সম্মেলনে যোগ দিয়ে তিনি জানাবেন, কেন তিনি মমতার হয়ে পথে নামলেন।

উল্লেখ্য, রাজনীতিতে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সঙ্গে জয়া বচ্চনের সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। দু’জনে একসঙ্গে দীর্ঘ সময় সংসদ ভবনের অলিন্দে পা মিলিয়েছেন। মমতা বন্দোপাধ্যায় যখনই ডেকেছেন বাংলার ‘ধন্যি মেয়ে’কে, তখনই সাড়া দিয়েছেন অমিতাভজায়া। শুধু কি তাই, করোনাকালের আগে প্রত্যেক বছর ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের মঞ্চে হাজির থাকতেন অমিতাভ-জয়া দুজনেই৷ ফলে এতদিনের সেই পুরানো সম্পর্কের জন্যই এবার এই রাজ্যে মমতার হয়ে পথে নামছেন জয়া বচ্চন।

সুত্রের খবর, আজ রোড শো করার পাশাপাশি বুথ এজেন্টদের একটা মিটিংয়ে যোগ দিতে পারেন জয়া বচ্চন। অন্যদিকে জয়ার আগামীকাল নারকেল বাগানে একটি পদযাত্রা আছে। ৭ তারিখ মমতা বন্দোপাধ্যায়ের হয়ে, তাঁর সঙ্গেই টালিগঞ্জের ওয়ারলেস মাঠে একটা সভায় যোগ দিতে পারেন সমাজবাদী পার্টির সাংসদ জয়া বচ্চন।

গতকাল সন্ধ্যায় কলকাতা বিমানবন্দরে জয়া বচ্চনকে স্বাগত জানাতে উপস্থিত হয়েছিলেন তৃণমূলের মহিলা সংগঠনের প্রতিনিধিরা। ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’ স্লোগানে মুখরিত ছিল বিমানবন্দরের পরিবেশ। বাংলার মানুষের কাছে আজও জয়া বচ্চন পরিচিত সেই ‘ধন্যি মেয়ে’ হিসাবেই। মমতা বন্দোপাধ্যায় নিজেও বাংলার ধন্যি মেয়েই বটে। তাঁর সংকল্প, জেদ, হার না মানার মানসিকতা এই ভোটে জেতার অন্যতম ইউএসপি বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। ফলে পর্দার ধন্যি মেয়ে আর বাস্তবের ধন্যি মেয়ের যুগলবন্দী রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলকে কতটা সুবিধা করে দেয় এই নির্বাচনে, সেটাই এখন দেখার।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.