২জি মুক্ত ভারত গড়ার লক্ষ্যে রিলায়েন্স জিও-র নয়া উদ্যোগ! রইল বিস্তারিত

২জি মুক্ত ভারত গড়ার লক্ষ্যে রিলায়েন্স জিও-র নয়া উদ্যোগ! রইল বিস্তারিত
২জি মুক্ত ভারত গড়ার লক্ষ্যে রিলায়েন্স জিও-র নয়া উদ্যোগ! রইল বিস্তারিত

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে ডেটা, ফ্রি কলিং-এর সুবিধা এসব তো আগেই ছিল, এখনও আছে। এইসব মিলিয়েই রিলায়েন্স জিও ভারতে ৪জি প্রযুক্তির ক্ষেত্রে বিপ্লব নিয়ে এসেছে আগেই। ভারতীয় টেলিকম শিল্পেও জিও আজ নিজের আলাদা পরিচিতি গড়ে তুলেছে। আজ জিও অন্যান্যদের কাছে অপ্রতিরোধ্য একটি নাম।

৪জি বিপ্লবে নেতৃত্ব দেওয়ার পাশাপাশি, এবার উৎসবের আবহে আকর্ষণীয় খবর জিও-র তরফে। এই সংস্থা এবার ভারতীয় গ্রাহকদের জন্য উন্নত ৫জি প্রযুক্তি নিয়ে আসার কথা ঘোষণা করেছে। সংস্থার বিশ্বাস, অত্যন্ত কম খরচে মানুষ এই পরিষেবার সুযোগ গ্রহণ করতে পারবেন। শুধু তাই নয়, এর পাশাপাশি ন্যূনতম মূল্যে আসতে চলেছে জিও-র ফাইভ-জি স্মার্টফোনও! জিও ফোন ৫জি নামের এই ফোনটি দিওয়ালির পর বাজারে আসবে বলে জানা গিয়েছে। রিলায়েন্সের দাবি যদি বাস্তবে সত্যি হয়, তাহলে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে জিও ফোন ৫জি- এর হাত ধরে ভারতের যে ‘২জি মুক্তি’ ঘটতে চলেছে, সেই বিষয়ে কোন সন্দেহ বা প্রশ্ন কোনটাই নেই।

এক সর্বভারতীয় সংবাদসংস্থা সূত্রে জানা যাচ্ছে যে, প্রাথমিকভাবে মাত্র ৫,০০০ টাকা বা তার চেয়েও কম মূল্যের বিনিময়ে জিও-র ৫জি স্মার্টফোন ক্রেতারা কিনতে পারবেন। তবে বিক্রি যতোই বাড়বে, তার সঙ্গে এই স্মার্টফোন- এর মূল্য আরও কমবে বলেই রিলায়েন্সের একাধিক কর্মকর্তার জানিয়েছেন। এমনকি ফোনগুলির দাম ২,৫০০ টাকা থেকে ৩,০০০ টাকাও হতে পারে বলে জানা গেছে। এক্ষেত্রে জিও মূলত ভারতের বিপুল সংখ্যক ২জি পরিষেবা ব্যবকারকারী জনতাকেই তাদের লক্ষ্য করেছে, তা বোঝাই যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, ভারতে প্রায় কুড়ি কোটিরও বেশি সংখ্যক মানুষ এখনও ২জি পরিষেবা নিচ্ছেন। যেখানে স্বল্প মূল্যের বিনিময়ে, হাইস্পিড ৪জি পরিষেবা সহজেই মেলে, সেখানে এই বিপুল সংখ্যক ২জি ব্যবহারকারী গ্রাহকদের আরও উন্নত প্রযুক্তির আওতায় আনতে বদ্ধপরিকর রিলায়েন্স। ইতিমধ্যেই নিজেদের ৪৩তম বার্ষিক অধিবেশনে, রিলায়েন্স কর্ণধার মুকেশ আম্বানী সেই কারণেই ‘২জি মুক্ত ভারত’ গড়ে তোলার আহ্বান দিয়েছিলেন। এই লক্ষই বাস্তবায়িত করতে রিলায়েন্সের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে প্রখ্যাত সংস্থা গুগুল। ভারতের ঘরে ঘরে ৫জি প্রযুক্তি সরবরাহের লক্ষ্যে গুগুল জিও-র ৭.৭ শতাংশ শেয়ার কেনার সঙ্গে প্রায় ৩৩,৭৩৭ কোটি টাকার বিশাল পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ করছে বলে জানিয়েছেন মুকেশ আম্বানী স্বয়ং।

৪জি বিপ্লবের মতোই, ভারতে ৫জি প্রযুক্তির হাল রিলায়েন্স জিও ধরতে পারবে কিনা, সে তো সময়ই বলবে। আগামী ২০২১ সালের মধ্যে রিলায়েন্স এই প্রযুক্তি নিয়ে আসার কথা ঘোষণা করা হয়েছে সংস্থার তরফে, তবে এটাও মনে রাখা প্রয়োজন যে, দেশের কেন্দ্রীয় সরকার এখনো ৫জি স্পেক্ট্রামের নিলাম শুরু করেনি।তাছাড়া ৪জি পরিষেবা নিয়েই নেটিজেনদের মধ্যে নানা অভিযোগ রয়েছে। সেইসব অভিযোগ না মিটিয়ে এবং সমস্যার সমাধান না করে, আচমকাই ৫জি পরিষেবায় পৌঁছে যাওয়ার স্বপ্ন দেখা, একটু বেশিই ঝুঁকি নেওয়া হয়ে যাচ্ছে বলেই একাংশের মত।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.