বিজেপি ছাড়ার সিদ্ধান্ত জয় ব্যানার্জির! মোদিকে চিঠি লিখে উগড়ে দিলেন ক্ষোভ

বিজেপি ছাড়ার সিদ্ধান্ত জয় ব্যানার্জির! মোদিকে চিঠি লিখে উগড়ে দিলেন ক্ষোভ

ফের গেরুয়া শিবিরে ভাঙন! দল ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিলেন বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে এই বিষয়ে চিঠিও লিখে জানালেন সে কথা। চিঠিতে নিজের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন বিজেপি নেতা। দলে থেকেও যে তিনি বারবার অবহেলিত, প্রধানমন্ত্রীকে এ কথাও জানাতে ভোলেননি তিনি।

চিঠিতে কী লিখেছেন বিজেপি নেতা? শুরুতেই প্রধানমন্ত্রীকে দীপাবলির শুভেচ্ছা জানিয়ে জয় ব্যানার্জি লেখেন, ‘টানা ২ বছর ধরে আপনার কাছ থেকে অ্যাপয়েন্টমেন্ট চাইছি। আজও তা পেলাম না। অসুস্থতার জন্য সাহায্য চেয়েছিলাম। সেটাও পাইনি। ২০১৪ সালে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর দল ও আপনার জন্য কঠিন পরিশ্রম করেছি। এসব করতে গিয়ে মার খেয়েছি। বুকে, মাথায় গুরুতর আঘাত লেগেছে। ২০১৭ সালে আপনি আমাকে দলের জাতীয় কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য করেছিলেন। কিন্তু এবার সেই পদ থেকে আমাকে সরিয়ে পদটি দিয়ে দেওয়া হয়েছিল রাজীব ব্যানার্জিকে। এখন তিনিও দলবদল করে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন।’

চিঠিতে জয় আরও লেখেন, ‘সবচেয়ে খারাপ বিষয়, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক আজ আমার কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা সরিয়ে নিয়েছে। রাজ্যের বিজেপি নেতারা আমাকে বরবারই অবহেলা করেছেন। কলাইকুন্ডাতে ২০১৭ সালে দেখা হওয়ার সময়েই বিষয়টি আমি আপনাকে বলেছিলাম। তার পর ১০ দিনের মধ্যে আপনি আমাকে জাতীয় কার্য নির্বাহী সদস্য নির্বাচিত করেন। তবে এখন আপনাকে জানাই, আমি খুব শীঘ্রই দল ছেড়ে দিচ্ছি। আমাকে আশীর্বাদ করুন।’

এদিন দল ছাড়ার প্রসঙ্গে জয় নিজে জানান, “আমি প্রথম থেকে বিজেপিতেই ছিলাম। কিন্তু কিছু বিষয়ে আমার দলের উপর খারাপ লাগা তৈরি হয়েছে। আমি খুবই দুঃখ পেয়েছি। আমায় জাতীয় কার্যনির্বাহী পদ থেকে সরিয়ে রাজীব বন্দ্য্যোপাধ্যায়কে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। একাধিকবার আমি এই রাজ্যে মার খেয়েছি। তবুও গতকাল আমার নিরাপত্তা সরিয়ে নেওয়া হয়। সেই কারণে প্রধানমন্ত্রীকে আমি জানিয়ে দিয়েছি যে আমি নিজেকে বিজেপি থেকে সরিয়ে নিলাম। আমি মানুষের কাজ করি। যে দলের সঙ্গে মানুষ রয়েছে আমি সেই দলে রয়েছি। যেই দল মানুষের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে সেই দল আমি ছাড়ছি।”

উল্লেখ্য, এবার বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির হয়ে ভোটে দাঁড়ানোর টিকিট পাননি জয় ব্যানার্জি। ফলে তখন থেকেই বাড়ছিল। নির্বাচনের ফলপ্রকাশের পর দলের বিরুদ্ধে সে ক্ষোভ উগড়েও দেন তিনি। এবার সম্প্রতি কেন্দ্রীয় নিরাপত্তাও উঠিয়ে নেওয়ায় কার্যত হতাশ বিজেপি নেতা। এই ঘটনায় রীতিমতো ক্ষুব্ধ তিনি। সেই কারণ দেখিয়েই প্রধানমন্ত্রীকে সরাসরি চিঠি জয়ের। তবে এরপরই যদিও রাজনৈতিক মহলে জোর গুঞ্জন, রাজীব ব্যানার্জির পর জয়ও কি এবার জয়ও তৃণমূলের পথে? অবশ্য এ বিষয়ে মুখ খোলেননি জয় ব্যানার্জি।