শত্রুদের ঘুম ওড়াবে ভারতের ‘বজ্র’! এক নিমেষে গুঁড়িয়ে দিতে পারে ৫০ কিমি দূরের শত্রু ঘাঁটি

শত্রুদের ঘুম ওড়াবে ভারতের ‘বজ্র’! এক নিমেষে গুঁড়িয়ে দিতে পারে ৫০ কিমি দূরের শত্রু ঘাঁটি
শত্রুদের ঘুম ওড়াবে ভারতের ‘বজ্র’! এক নিমেষে গুঁড়িয়ে দিতে পারে ৫০ কিমি দূরের শত্রু ঘাঁটি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ সীমান্তে ক্রমশ নিজেদের শক্তি বৃদ্ধি করছে চিন। এবার পাল্টা জবাব দিতে সবরকমভাবে প্রস্তুত ভারতও। সীমান্ত নিয়ে সমস্যার শুরু গতবছর থেকেই। গতবছর থেকেই ভারত এবং চিন সম্পর্ক উত্তপ্ত সীমান্তকে কেন্দ্র করে। দফায় দফায় একাধিক বৈঠকের পরও সমস্যার সমাধান হয়নি। সম্প্রতি সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ রানাভানের বক্তব্য থেকেই তা ফের একবার প্রমাণিত হল। দু’দেশের সেনা একাধিকবার আলোচনাতে বসলেও এখনও সীমান্তে সেনা মোতায়েন করেই চলছে চিন। সম্প্রতি সেকথাই জানিয়েছেন ভারতের সেনাপ্রধান।

সেনাপ্রধান লেহ-তে গিয়েছেন ইতিমধ্যেই। সেখান থেকেই তিনি একপ্রকার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন চিনকে। মুখের কথাই শুধু নয়, এবার বেজিংকে পাল্টা জবাব দিতে ঘুঁটি সাজাচ্ছে নয়াদিল্লি। সেনা সূত্রে খবর, ইতিমধ্যে পূর্ব লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় প্রথমবার হাউইৎজার রেজিমেন্ট কে-৯ বজ্র (K9-Vajra) মোতায়েন করেছে ভারত। এই কামান ‘বজ্র’ এক নিমেষে ৫০ কিলোমিটার দূরে থাকা শুত্রু ঘাঁটিকে নিশ্চিহ্ন করতে সক্ষম।

এক সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সেনাপ্রধান জানিয়েছেন, ‘দুর্গম এলাকাতেও সাফল্যের সঙ্গে কাজ করতে পারে এই কামান। এটা প্রমাণিত। এবার আমরা একটা গোটা রেজিমেন্ট মোতায়েন করেছি।’ তিনি আরও জানিয়েছেন, ‘যেকোনো পরিস্থিতির মোকাবিলায় প্রস্তুত ভারতীয় সেনা।’

উল্লেখ্য, ২০২৮ সালে ভারতীয় সেনার হাতে কে-৯ বজ্র কামান তুলে দেয় সরকার। গুজরাতে লারসেন অ্যান্ড টুবরো কমপ্লেক্সে তৈরি হয়েছে এই অত্যাধুনিক হাউইৎজার কামান। ২০১৭-তে ১০০ ইউনিট কে-৯ বজ্র তৈরির জন্য লারসেন অ্য়ান্ড টুবরো ৪ হাজার ৫০০ কোটি টাকার বরাত পায়। এই কামান বজ্রের ওজন প্রায় ৫৫ টন, এই কামান ৪৭ কেজি ওজন পর্যন্ত বোমা নিক্ষেপ করতে সক্ষম।