সকালে উপত্যকায় জোড়া এনকাউন্টার! খতম জঙ্গি সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিনের এক শীর্ষ কম্যান্ডার

সকালে উপত্যকায় জোড়া এনকাউন্টার! খতম জঙ্গি সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিনের এক শীর্ষ কম্যান্ডার
সকালে উপত্যকায় জোড়া এনকাউন্টার! খতম জঙ্গি সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিনের এক শীর্ষ কম্যান্ডার / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ সকাল সকাল উপত্যকার একাধিক জায়গায় সেনা-জঙ্গি গুলির লড়াই চলে। এই গুলির লড়াইয়ে খতম হয়েছে প্রভাবশালী জঙ্গি সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিনের এক শীর্ষ কম্যান্ডার। হিজবুলের আরও এক জেহাদির মৃত্যু হয়েছে এই সংঘর্ষের ঘটনায়। এদিন এমনটাই জানিয়েছে কাশ্মীর জোন পুলিশ।

কাশ্মীর পুলিশ সূত্রে খবর, গোপন সূত্রে জঙ্গিদের লুকিয়ে থাকার খবরের ভিত্তিতে, এদিন সকালে কাশ্মীরের কুলগামের চাওয়ালগামে অভিযান শুরু করে সিআরপিএফ এবং পুলিশের যৌথবাহিনী। তল্লাশি অভিযান চলাকালীনই জেহাদিদের সঙ্গে গুলির লড়াই শুরু যৌথবাহিনীর। এই ঘটনায় খতম হয় দুই জঙ্গি। ওই এলাকায় একাধিক জঙ্গি লুকিয়ে আছে বলে খবর।

অন্যদিকে, কাশ্মীর জোনাল পুলিশের দেওয়া খবর অনুযায়ী, নিহত দুই জঙ্গির মধ্যে একজন হিজবুলের প্রথম সারির নেতা। জানা গিয়েছে, এইচএম শিরাজ মলভি নামের ওই জেহাদি ২০১৬ সাল থেকে হিজবুলের সঙ্গে যুক্ত। এই মুহূর্তে সে কুলগামে হিজবুলের কম্যান্ডার হিসাবে নিজুক্ত ছিল কাজে। এলাকায় হিজবুলের জন্য জেহাদিদের নিয়োগ করাই ছিল তার প্রধান কাজ। এদিনের সংঘর্ষে শিরাজের পাশাপাশি অপর নিহত জঙ্গির নাম ইয়াওয়ার ভাট।

আজকের এই ঘটনা প্রসঙ্গে কাশ্মীর পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল বিজয় কুমার জানিয়েছেন, ’শিরাজ এই এলাকার তরুণদের হিজবুলে নিয়োগের কাজ করত। এর আগে বহু হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সে। তাঁর মৃত্যু আমাদের জন্য বড় সাফল্য।’ নিহত জঙ্গিদের কাছ থেকে প্রচুর পরিমাণে অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার হয়েছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বেশ কিছু সময় ধরেই উপত্যকার পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ। ক্রমাগত ভিন রাজ্যের সাধারণ মানুষকে নিশানা করা হচ্ছে। আক্রমণ করা হচ্ছে পুলিশ এবং সেনা জওয়ানদের। পাশাপাশি বেড়েছে অনুপ্রবেশের চেষ্টাও। তবে, ভারতীয় সেনাও জেহাদিদের এই চেষ্টা দক্ষতার সঙ্গে রুখে দিচ্ছে।