করোনা নাশের কামানেই দূষণ রুখতে চায় পুরসভা

করোনা নাশের কামানেই দূষণ রুখতে চায় পুরসভা
করোনা নাশের কামানেই দূষণ রুখতে চায় পুরসভা

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ করোনার জন্য শহরের রাজপথ জীবাণুমুক্ত করতে যে কামান ব্যবহার করেছিল কলকাতা পুরসভা এবার সেই কামানই ব্যবহার করা হবে শীতের শহরের দূষণ রোধ করতে। শহর কলকাতা বারোটি জোনে পর্যায়ক্রমে ঘুরে বেড়াবে ‘মিস্ট ক্যানন’।

রাজ্য তথা শহরে করোনার উপদ্রব বাড়তেই হাজার হাজার লিটার জল বহন ক্ষমতা সম্পন্ন কামানকে পথে নামিয়েছিল কলকাতা পুরসভা। শহরের বিভিন্ন অলিতে গলিতে ঘুরে স্প্রে ছড়িয়ে রাস্তাকে জীবাণুমুক্ত করেছিল এই কামান। এবার শীতে শহরের ধুলোর পরিমাণ কমাতে সেই কামানের ব্যবহার করতে চাইছে কলকাতা পুরসভা।

কলকাতা পুরসভা সূত্রে খবর, করণা আবহে রাস্তায় ব্যক্তিগত গাড়ির সংখ্যা বেড়েছে আগের থেকে অনেক বেশি। এর ফলে শীতের শুরুতেই বাতাসে কার্বনের পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এদিকে আম্ফানে প্রায় 16 হাজার গাছ পড়ে যাওয়ায় অক্সিজেনের ঘাটতি ও ঘটছে। এইসব দিকে সামাল দিতেই এবার রাজপথে কামান দিয়ে দূষণ রোধ করার সিদ্ধান্ত নিল পুরসভা।

পুরসভা সূত্রে আরো জানা যাচ্ছে, পর্যায়ক্রমে শহরের বিভিন্ন ঘনবসতি ও জনবহুল এলাকায় দুপুরের পর থেকে প্রত্যেক দিন এই কামান ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে জল ছেটানো হবে। এতে দূষণের মান অনেকটাই কমবে বলে মনে করছেন আধিকারিকরা।
ভিক্টোরিয়া সার্দান অ্যাভিনিউ বিভিন্ন এলাকায় যে বড় বড় গাছ রয়েছে সেখানে স্প্রিংকলার দিয়ে গাছের পাতা সাত দিন অন্তর অন্তর ধুয়ে দেওয়া হবে। তে পাতায় জমে থাকা ধুলো বেরিয়ে যাবে যার ফলে পত্ররন্ধ্র সম্পূর্ণ মুক্ত থাকায় অক্সিজেন যোগানে সুবিধে হবে।

এই প্রসঙ্গে কলকাতা পুরসভার মুখ্য প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, শহরজুড়ে আম্বানি 16 হাজার গাছ ভেঙে পড়ায় শীতের শুরুতেই দূষণ বাড়তে শুরু করেছে। সেই কারণে এই কামান দিয়ে জনবহুল এলাকায় জল ছেটানো হবে। এতে ধুলো কম উড়বে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.