কবে থেকে খুলছে স্কুল? কী বলছে বিভিন্ন রাজ্যের সরকার? রইল বিস্তারিত

কবে থেকে খুলছে স্কুল? কী বলছে বিভিন্ন রাজ্যের সরকার? রইল বিস্তারিত
কবে থেকে খুলছে স্কুল? কী বলছে বিভিন্ন রাজ্যের সরকার? রইল বিস্তারিত / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দেশব্যাপী করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাব অনেকটাই কমে এসেছে। দেশের অধিকাংশ রাজ্যেই শিথিল করা হয়েছে কড়া বিধিনিষেধ এবং লকডাউন। আগের থেকে নিম্নমুখী করোনার সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যা। বেড়েছে সুস্থতার হার। পাশাপাশি চলছে টিকাকরণ। ইতিমধ্যেই মারণ করোনা এবং লকডাউনের জেরে বাতিল হয়েছে দেশের অধিকাংশ বোর্ডের পরীক্ষা। তবে, এখন পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। দেশের করোনা গ্রাফ অনেকটাই নিম্নমুখী। এই পরিস্থিতিতে দেশের মধ্যে বেশ কিছু রাজ্য স্কুল এবং অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে চলেছে। এর মধ্যে অন্যতম হল, হরিয়ানা, তেলেঙ্গানা, গুজরাত ও পাঞ্জাব। জানা গিয়েছে, সম্পূর্ণ করোনাবিধি মেনেই খোলা হবে স্কুলগুলি।

যদিও এর মধ্যেই করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আশঙ্কাও রয়েছে। এই অবস্থায় স্কুল এবং অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নিতে চাইছে না আবার বেশ কিছু রাজ্য। অতি সম্প্রতি এই বিষয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেছেন, ‘আন্তর্জাতিক স্তরে তৃতীয় ঢেউয়ের মাধ্যমে ফের একবার কোভিড-19 তার প্রভাব দেখাতে পারে। জতদিন পর্যন্ত না সবার ভ্যাকসিন নেওয়ার প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হচ্ছে, ততদিন আমরা বাচ্চাদের জীবন নিয়ে ঝুঁকি নিতে পারি না।’

আবার, কর্ণাটকের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডঃ কে সুধাকর জানিয়েছেন যে, স্কুলের শিক্ষকদের ভ্যাকসিন দেওয়ার পরই স্কুল খোলা হবে। এর ফলে শিক্ষকদের থেকে ছাত্রদের মধ্যে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সুযোগ থাকবে না। উল্লেখ্য, এর মধ্যে বেশ কিছু রাজ্যে জুলাইয়ের শেষে অথবা আগস্ট মাসে উঁচু ক্লাসের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। এবার একবার জেনে নেওয়া যাক, দেশের মধ্যে কোন কোন রাজ্য স্কুল খোলার ব্যাপারে কী সিদ্ধান্ত নিয়েছে বা কী ভাবছে এ ব্যাপারে?

গুজরাত– ২৬ জুলাই থেকে নবম শ্রেণি থেকে একাদশ শ্রেণি পর্যন্ত ক্লাস চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে গুজরাত সরকার। তবে, এক্ষেত্রে শুধুমাত্র ৫০ শতাংশ ছাত্রছাত্রীই স্কুলের ক্লাস করতে পারবে বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু যারা স্কুলে এসে ক্লাস করতে আগ্রহী, তাদের অভিভাবকদের একটি কনসেন্ট ফর্মে সই করতে হবে। তবে, অবশ্যই স্কুলে আসা এখনই বাধ্যতামূলক করছে না গুজরাত সরকার। সে রাজ্যের সরকারের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, অনলাইনের মাধ্যমে এতদিন যেভাবে ক্লাস চলছিল সেই পদ্ধতিও সমান্তরালভাবে চলবে।

রাজস্থান– সম্প্রতি রাজস্থানের শিক্ষামন্ত্রী গোবিন্দ সিং দোতাসরা নিজের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে জানিয়েছেন যে, আগামী মাসের ২ তারিখ থেকে রাজ্যের স্কুলগুলি খুলে যাবে। আর সেই মর্মে ইতিমধ্যেই মন্ত্রিসভায় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। তিনি বলেন যে, সব বাচ্চারা যাতে কোভিড-19 থেকে সুরক্ষিত থাকে তা নিশ্চিত করতে হবে।

পাঞ্জাব- এ মাসের ২৬ তারিখ থেকেই স্কুল খোলার নির্দেশিকা জারি করেছে পাঞ্জাব সরকার। দশম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত ছাত্রছাত্রীদের জন্য খোলা থাকবে স্কুল। পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং জানিয়েছেন, যে সকল শিক্ষক ও স্কুলের কর্মচারীর ভ্যাকসিন নেওয়া পূর্ণ হয়েছে, শুধুমাত্র তারাই স্কুলে আসতে পারবে। তবে, ছাত্র- ছাত্রীরা স্কুলে আসবে কিনা, সে ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন অভিভাবকরাই। তিনি জানিয়েছেন যে, ছাত্র- ছাত্রীদের স্কুলে পাঠানোর সিদ্ধান্ত পুরোপুরি অভিভাবকদের উপরই ছেড়ে দিয়েছে পাঞ্জাব সরকার। তবে, এই রাজ্যেও অনলাইনে ক্লাস চলবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

মধ্যপ্রদেশ– এই রাজ্যেও ২৬ জুলাই থেকেই চালু হচ্ছে একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির ক্লাস। এরপর ধীরে ধীরে পরিস্থিতি কী থাকে, সেদিকে নজর রেখেই, বাকি ক্লাসের ছাত্রছাত্রীদেরও স্কুলে আসার অনুমতি দেওয়া হবে।

ছত্তিশগড়- অগাস্ট মাসের 2 তারিখ থেকে স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ছত্তিসগড় সরকার। শুধুমাত্র দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হবে। এছাড়া ধাপে ধাপে কলেজ খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। মন্ত্রীসভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, যে এলাকার স্কুল খুলবে, সেখানে কোন কোভিড-19 কেস থাকা চলবে না। এছাড়াও গ্রামের ক্ষেত্রে গ্রাম পঞ্চায়েত ও শহরের ক্ষেত্রে কাউন্সিলর এবং ছাত্রছাত্রীদের বাবা-মায়ের অনুমতি নিয়েই খোলা যাবে স্কুল।

পশ্চিমবঙ্গ- করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের কথা মাথায় রেখে, এখনও পর্যন্ত স্কুল খোলার কোন রকমের কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। তবে যখনই স্কুল খুলুক না কেন, উঁচু ক্লাসের ছাত্রছাত্রীরা আগে স্কুলে আসবেন। প্রাথমিক পর্যায়ের পড়ুয়ারা আসবে না বলেই জানিয়েছেন শিক্ষা দফতরের এক আধিকারিক। যদিও এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকারের উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

অন্ধ্রপ্রদেশ- মুখ্যমন্ত্রী জগন মোহন রেড্ডির দ্বারা আয়োজিত একটি বৈঠকে আগামি ১৬ অগাস্ট থেকে স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ সরকার।

হিমাচল প্রদেশ- মন্ত্রীসভার একটি বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম ঠাকুর আগামি ২ অগাস্ট থেকে দশম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত ক্লাস চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এছাড়াও শিক্ষকদের থেকে সাহায্য পেতে, পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ছাত্রছাত্রীদেরও স্কুলে আসার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।