বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২

ঘরওয়াপসি অর্জুন সিং-এর! মুখ খুললেন দিলীপ ঘোষ, ঠিক কী বললেন?

আত্রেয়ী সেন

প্রকাশিত: মে ২২, ২০২২, ০৮:৫০ পিএম | আপডেট: মে ২২, ২০২২, ০৮:৫০ পিএম

ঘরওয়াপসি অর্জুন সিং-এর! মুখ খুললেন দিলীপ ঘোষ, ঠিক কী বললেন?
ঘরওয়াপসি অর্জুন সিং-এর! মুখ খুললেন দিলীপ ঘোষ, ঠিক কী বললেন?

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে নিজের পুরনো ঘরে ফিরেছেন অর্জুন সিং। এদিন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিলেন বারাকপুরের বিজেপি সাংসদ। 

এদিন তৃণমূলে যোগদানের পরেই বারবার বিজেপিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন। এদিন তিনি বলেন, ‘ঠাণ্ডা ঘরে বসে এবং ফেসবুকে রাজনীতি হয় না’, দিলীপ-শুভেন্দু-সুকান্তদের একসঙ্গে আক্রমণ করলেন বারাকপুরের সাংসদ। এদিন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, পার্থ ভৌমিক, রাজ চক্রবর্তীদের উপস্থিতিতেই অর্জুন সিং এর গলায় উত্তরীয় পরিয়ে দেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। 

এরপরই অর্জুন সিং সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে, তাঁদের উদ্দেশে বলেন, ‘যে ঘরের ছেলে ছিলাম, সেই ঘরেই ফিরেছি। মাঝখানে কিছু ভুল বোঝাবুঝিতে বিজেপিতে গিয়েছিলাম।’ এরপর রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বকে আক্রমণ করে তিনি বলেন, ‘শুধু ফেসবুক এবং ঠাণ্ডা ঘরে বসে রাজনীতি করতে চাইছে গেরুয়া শিবির। বাংলায় এভাবে কাজ হয় না। এখানে মাটিতে থেকে রাজনীতি করতে হয়।’

এদিকে, অর্জুন সিং এর এই মন্তব্যের পাল্টা আক্রমণ করেছেন বিজেপির সাংসদ তথা রাজ্যের প্রাক্তন বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। অর্জুনের ঠাণ্ডা ঘরের প্রসঙ্গ টেনে তিনি পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘আমরা ঠাণ্ডা ঘরে বসে রাজনীতি করলে দুশো জন কর্মী মারা গেলেন কীভাবে? ওনার বিরুদ্ধেও তো একশোটা কেস রয়েছে। তাহলে উনিও কি ঠান্ডা ঘরে বসে রাজনীতি করেতেন? উনি চাপে পড়ে চলে গিয়েছেন। ওনার একাধিক ব্যবসা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তাই চলে গিয়েছেন। একজন ৩০ বছর রাজনীতি করার পর, কীভাবে ভুল বোঝাবুঝি হয়? বিজেপি লড়াই করবে। যাদের অসুবিধা রয়েছে, তারা চলে গিয়েছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আসা যাওয়া পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতির অঙ্গ হয়ে গিয়েছে। এসেছিলেন স্বাগত, যাচ্ছেন টাটা। পরাজয় বিজেপির হয়নি। সারা ভারতে বিজেপি ১ নম্বর হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে ২ নম্বর হয়েছে, ১ নম্বর হবে। বিজেপি বিজেপিতেই আছে। আমাদের মিশন আমরা পূরণ করব।’

এদিন অর্জুন সিং-এর দল ছাড়ার পরই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি বলেন, ‘অর্জুন সিং ক্ষমতায় থেকে রাজনীতি করে এসেছেন। বিরোধী হয়ে রাজনীতি করাটা যে কতটা কঠিন সেটা বুঝতে পেরেছেন এখন। ওঁর ব্যক্তিগত সমস্যা আছে তাই উনি চলে গিয়েছেন।’

এখানেই শেষ নয়, তিনি আরও বলেন, ‘উনি পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে রাজনীতি করা লোক। ওনার পক্ষে পুলিশের বিরুদ্ধে গিয়ে লড়াই করা অত্যন্ত কঠিন।’ তাঁর কথায়, ‘পার্টির যখন জেতার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তখন অর্জুন এসেছিলেন। বিজেপির সংগঠন উনি তৈরি করেননি। কোনও ভুল বোঝাবুঝিও হয়নি। বিজেপি নিজের মতো করে লড়বে।’

তৃণমূলে যোগদানের পর পাটশিল্প নিয়ে অর্জুন সিং কেন্দ্রের বিরুদ্ধে যে যে অভিযোগ করেছেন, তার প্রেক্ষিতে প্রশ্ন করা হলে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘তৃণমূলে গেলে পাটশিল্প বাঁচবে? তৃণমূল বাঁচে কিনা ঠিক নেই। আর যদি তা-ই হয় তাহলে নেত্রীকে ছেড়ে এসেছিলেন কেন?’ তিনি আরও দাবি করেছেন যে, কেন্দ্রের বিজেপি সরকারই পাটশিল্পকে পাটশিল্পকে বাঁচাতে সবচেয়ে বেশি উদ্যোগ নিয়েছে। ১০০ শতাংশ ভর্তুকিও দেওয়া হচ্ছে।  

উল্লেখ্য, বিজেপিতে গুরুত্ব পাননি এমন অভিযোগ করেছেন অর্জুন সিং। এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষকে প্রশ্ন করা হলে, তিনি বলেন, ‘কেন বলছেন বলতে পারবেন। আমরা তো মুখ্যমন্ত্রী করতে পারব না। আমাদের সেই সংখ্যা নেই। নয়তো সেটাও করে দেওয়া হতো।’