রবিবার, ০২ অক্টোবর, ২০২২

‘কেকে-কে চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে, এটা হত্যা’! প্রয়াত শিল্পীর মৃত্যু নিয়ে বিস্ফোরক দিলীপ

আত্রেয়ী সেন

প্রকাশিত: জুন ২, ২০২২, ১০:৩৩ এএম | আপডেট: জুন ২, ২০২২, ১০:৩৩ এএম

‘কেকে-কে চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে, এটা হত্যা’! প্রয়াত শিল্পীর মৃত্যু নিয়ে বিস্ফোরক দিলীপ
‘কেকে-কে চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে, এটা হত্যা’! প্রয়াত শিল্পীর মৃত্যু নিয়ে বিস্ফোরক দিলীপ

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ কলকাতায় অনুষ্ঠান করতে এসে অকালেই প্রয়াত হয়েছেন বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী কেকে ওরফে কৃষ্ণকুমার কুন্নাথ। তাঁর মৃত্যু নিয়ে ইতিমধ্যেই তৈরি হয়েছে বিতর্ক। অনুষ্ঠান আয়োজকদের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই নানান অভিযোগ উঠে আসছে। এই পরিস্থিতিতে বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ। 

কী বললেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি? দিলীপ ঘোষ দাবি করেছেন, ‘কেকে-কে চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে। এটা হত্যা। অপরাধবোধ থেকেই গান স্যালুট দিয়েছে সরকার।’

বৃহস্পতিবার সকালে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে রাজ্য প্রশাসনকে কেকে-এর মৃত্যু নিয়ে আক্রমণ করলেন বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘একটা লোককে হত্যা করা হল। অমিত শাহ বলেছিলেন, বাংলায় গেলে মারা যেতে পারেন। বাংলায় এসে লোকটা বেঘোরে মারা গেলেন। এটা কলেজের অনুষ্ঠান নয়, তৃণমূল পার্টির অনুষ্ঠান। ওরা লোক জড়ো করেছে। নেতারা আয়োজন করেছেন। ওকে দিয়ে জোর করে একের পর এক গান গাইয়েছে। উনি পারছিলেন না। চলে যেতে চাইছিলেন। চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে। এটা হত্যা।’

বুধবার শিল্পীর ময়নাতদন্তের পর, রবীন্দ্র সদনে কেকে-এর কফিনবন্দি দেহ নিয়ে আসা হয়। সেখানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে গান স্যালুটের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয় প্রখ্যাত সঙ্গীত শিল্পীকে। মুখ্যমন্ত্রী এবং পরিবারের পাশাপাশি তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানান অন্যান্য মন্ত্রীরাও। সরকারের এই পদক্ষেপেরও সমালোচনা করেন এদিন দিলীপ ঘোষ। তাঁর কথায়, ‘যে অপরাধবোধ তৈরি হয়েছে, তা ঢাকা দিতে গান স্যালুট দেওয়া হয়েছে। আর ওঁর মৃতদেহ চুরি করার অভ্যেস রয়েছে।’ অসুস্থ হওয়ার পরেও, হাসপাতালে না নিয়ে গিয়ে কেন হোটেলে নেওয়া হল? এই প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। 

এদিকে, কুণাল ঘোষ এইসব অভিযোগ সম্পর্কে বলেন, ‘এতো জনের মধ্যে কেউ অসুস্থ হলেন না। পেশাদার শিল্পী পারফর্ম করে বেরিয়ে যাওয়ার পর অসুস্থ হয়েছেন। এটা নিয়ে কিছু রাজনৈতিক দল কুৎসা করছে। এটা ওদের রাজনৈতিক দেউলিয়া হওয়ার উদাহরণ। মুখ্যমন্ত্রী পূর্ণ সম্মান দিয়ে শেষ বিদায়ের ব্যবস্থা করেছেন।’

কেকে-এর প্রয়াণের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়েছে এক সুরেলা অধ্যায়ের। ২ জুন অর্থাৎ আজ, বৃহস্পতিবার দুপুরে কেকে-কে শেষ বিদায় জানানো হবে। বুধবার রাতেই কলকাতা থেকে তাঁর নশ্বর দেহ মুম্বই নিয়ে গেছেন তাঁর পরিবার। কেকে-এর কফিনবিন্দি দেহ নিয়ে রাত ৯ টা নাগাদ মুম্বই পৌঁছায় তাঁর পরিবারের সদস্যরা। 

উল্লেখ্য, আজ কেকে ওরফে কৃষ্ণকুমার কুন্নাথ-এর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে মুম্বইয়ের ভার্সোভা শ্মাশনে। জানা গিয়েছে দুপুর ১ টায় শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। এদিকে, গতকালই কেকে-এর ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট অনুযায়ী, কেকে-এর ফুসফুস এবং লিভারের সমস্যা ছিল। তবে, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। পাশাপাশি কলকাতা পুলিশ নিউ মার্কেট থানায় বিশিষ্ট এই শিল্পীর অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা দায়ের করেছে।