শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০২২

যতদূর যেতে হয় যাব, দুয়ারে রেশন করবই! বিধানসভায় দাঁড়িয়ে হুঁশিয়ারি মমতার

মৌসুমী

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৪, ২০২২, ০২:৫৪ পিএম | আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০২২, ০২:৫৫ পিএম

যতদূর যেতে হয় যাব, দুয়ারে রেশন করবই! বিধানসভায় দাঁড়িয়ে হুঁশিয়ারি মমতার
যতদূর যেতে হয় যাব, দুয়ারে রেশন করবই! বিধানসভায় দাঁড়িয়ে হুঁশিয়ারি মমতার

নিয়োগ দুর্নীতিতে জর্জরিত রাজ্য। এছাড়াও একের পর এক মামলায় আদালতে জেরবার হতে হচ্ছে রাজ্যকে। এবার এই নিয়েই বিধানসভা থেকে আদালতের কাছে আবেদন জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানালেন, "আদালতে লড়তে লড়তেই সব টাকা শেষ হয়ে যাচ্ছে। আমি আদালতকে আবেদন করবো বিধানসভা মারফত যাতে মানুষের সুবিধা হয়। বিচারের বাণী যেন নিরবে না কাঁদে"।

বিধানসভায় শুরু হয়েছে শীতকালীন অধিবেশন। সেখানে বৃহস্পতিবার নিয়োগ দুর্নীতি মামলার প্রসঙ্গ টেনে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, "যখনই আমরা লোক নিতে চাই রেশনে তখনই আদালতে যায়। আর স্টে নিয়ে চলে আসছে। আদালতে লড়তে লড়তে সব টাকা চলে যাচ্ছে। কথায় কথায় আদালতে চলে যাচ্ছে। তাই নতুন করে নিয়োগ করা সম্ভব হচ্ছে না। আমি আদালতকে আবেদন করব যাতে মানুষের সুবিধা হয়"।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী আরো বলেন, "পাবলিক চায় দুয়ারে রেশন। আদালতে আবেদন করা হোক। দুয়ারে রেশন চেয়ে আমরা সুপ্রিম কোর্টে আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ করেছি। আমি একা খাব, কাউকে দেব না। সেটা হবে না। এর জন্য যতদুর যেতে হয় যাব। কারও গায়ের জোরের কাছে সরকার মাথা নীচু করবে না। দুয়ারে রেশন করবই।"

রাজ্য সরকার ইতিমধ্যে ভুয়ো রেশন কার্ড বাদ দিয়েছে বলে এদিন মুখ্যমন্ত্রী মন্তব্য করেন বিধানসভায়। পাশাপাশি জানান প্রায় ৬২ লাখ কার্ড বাদ দেওয়া হয়েছে। এরপরেই বৃহস্পতিবার বিধানসভার প্রশ্নোত্তর পর্বে রাজ্যে সরকারি চাকরিতে নিয়োগ ইস্যুতে বলতে গিয়ে আক্ষেপ প্রকাশ করতে দেখা গিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। নিয়োগের ক্ষেত্রে সরকারের স্বদিচ্ছা থাকলেও একাধিক মামলার গেরোয় সেই প্রক্রিয়ায় বারবার বাধা আসছে বলে এদিন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, "৪৮০ কোটি টাকা ইনসেনটিভ দেওয়া হয়েছে। সকলের আপত্তি নেই। আমি নিজে বৈঠক করেছি। আমরা ভুয়ো রেশন কার্ড বাদ দিয়েছে। প্রায় ৬২ লাখ কার্ড বাদ দিয়েছি। ৬২ লাখ ৬৪ হাজার রেশন বাঁচিয়েছি। সেগুলো কোথায় গেল? আমি আর বেশি কিছু বলব না। ইশারাই কাফি।"