শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০২২

"অরণ্যের অধিকার অরণ্যের মানুষেরই হাতে"! আদিবাসী উন্নয়ন নিয়ে বড় ঘোষণা মমতার

মৌসুমী

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৪, ২০২২, ০১:২২ পিএম | আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০২২, ০১:২২ পিএম

"অরণ্যের অধিকার অরণ্যের মানুষেরই হাতে"! আদিবাসী উন্নয়ন নিয়ে বড় ঘোষণা মমতার

পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে আদিবাসী উন্নয়নের বিশেষ জোর দিচ্ছে রাজ্য সরকার। বিধানসভায় এদিন অধিবেশন কক্ষে একাধিক সরকারি প্রকল্প নিয়ে বিস্তারিত জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আদিবাসীদের নিয়েও বিশেষ ঘোষণা করেন তিনি।

এদের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিধানসভা থেকে বলেন, "আদিবাসীরা আমদের সমাজের সম্মানীয়। তাদের নানা ভাগ আছে৷ সমস্ত সম্প্রদায়ের জন্য আমরা কাজ করছি। আমরা তাদের জন্য ফান্ড বাড়িয়েছি। কেন্দু পাতার দাম বাড়িয়েছি৷ অরণ্যের অধিকার অরণ্যের মানুষের হাতে। তাদের জমি যাতে কেউ না নিতে পারে সেই ব্যবস্থা করেছি৷ বার্ধক্য ভাতা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। দুয়ারে সরকারে আমরা কাজ করছি।"

রাষ্ট্রপতিকে পুরস্কার মন্তব্য করে বিতর্কে জড়িয়ে ছিলেন রাজ্যের প্রতিমন্ত্রী অখিল গিরি। সড়ক হয়েছিল তৃণমূলও। এদিকে শুভেন্দু অধিকারী ও বিরবাহা হাঁসদাকে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য করেছেন। যার জেরে সমালোচনা করতে ছাড়েনি তৃণমূল।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন আরো বলেন, "শিক্ষাশ্রী স্কলারশিপ আছে তফশিলীদের জন্য৷ তারা টাকা পায়। হস্টেলের টাকা দেওয়া হত, তারপর আগে কমপ্লেন আসত। তাই সরাসরি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা দেওয়া হয়। তাদের জন্য সব সুবিধা দেওয়া হয়। উত্তর ও দক্ষিণের আলাদা ভাবাবেগ আছে। আমাকে সবটাই দেখতে হয়। আমরা বাবা সাহেব আম্বেদকর ইন্সটিটিউট থেকে গুরুচাঁদ ঠাকুর বিশ্ববিদ্যালয় করেছি। আপনাদের আর কিছু সাজেশন থাকলে দেবেন।"

এদিকে আজ বিধানসভায় মমতার ঘোষণায় বিশেষ জায়গা পেয়েছে আদিবাসী উন্নয়ন প্রসঙ্গ। পঞ্চায়েত ভোটের আগে আদিবাসী ভোটে যে বিশেষ নজর দিচ্ছে তৃণমূল তা এদিন একবার ফের প্রমাণিত হলো।