রবিবার, ০২ অক্টোবর, ২০২২

ভর সন্ধ্যেবেলায় পার্ক স্ট্রিটে আতঙ্ক, জাদুঘরে চলল এলোপাথাড়ি গুলি! ঘটনায় মৃত ১

চৈত্রী আদক

প্রকাশিত: আগস্ট ৬, ২০২২, ০৮:১৬ পিএম | আপডেট: আগস্ট ৬, ২০২২, ০৮:৪২ পিএম

ভর সন্ধ্যেবেলায় পার্ক স্ট্রিটে আতঙ্ক, জাদুঘরে চলল এলোপাথাড়ি গুলি! ঘটনায় মৃত ১
ভর সন্ধ্যেবেলায় পার্ক স্ট্রিটে আতঙ্ক, জাদুঘরে চলল এলোপাথাড়ি গুলি! ঘটনায় মৃত ১ / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪×৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ ভর সন্ধ্যেবেলায় কলকাতার বুকে চলল গুলি। শনিবার ভারতীয় জাদুঘরে এক সিআইএসএফ জওয়ান একে-৪৭ রাইফেল থেকে এলোপাথাড়ি গুলি ছুঁড়তে থাকেন বলে খবর। ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হন দু‍‍`জন। তাঁদর মধ্যে এক সিআইএসএফ কনস্টেবলের মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর জখম অপর এক ডিএসপি পদমর্যাদার অফিসার। গোটা ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে পার্ক স্ট্রিট এলাকায়।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন সিআইএসএফ অফিসার অস্ত্র ভান্ডার থেকে একে-৪৭ রাইফেল তুলে গুলি চালাতে শুরু করেন। প্রায় ১৫-২০ রাউন্ড গুলি চলে বলে প্রাথমিক ধারণা। তাঁকে বাধা দিতে যান বাকি সহকর্মীরা। তাঁদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ হন এএসআই রঞ্জিন সারেঙ্গী। গুরুতর জখম হন এক অ্যাসিস্টেন্ট কমান্ডার। তড়িঘড়ি দু‍‍`জনকে উদ্ধার করে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই রঞ্জিত সারেঙ্গীকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। অপরজন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছেন।

অন্যদিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে কলকাতা পুলিশ, কম্যান্ড বাহিনী এবং কলকাতা পুলিশের স্পেশাল অ্যাকশন ফোর্স। পৌঁছেছেন কলকাতা পুলিশ কমিশনার বিনীত গোয়েলও। নিয়ে আসা হয়েছে কমব্যাট ফোর্ট, বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। গোটা এলাকায় আঁটোসাঁটো করা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। এমনকি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে কিড স্ট্রিট। সাধারণ মানুষকেও ওই এলাকায় যাতায়াত না করার পরামর্শ দিচ্ছে কলকাতা পুলিশ।

অন্যদিকে বুলেট প্রুফ জ্যাকেট করে জাদুঘরের ভিতরে প্রবেশ করে কম্যান্ড বাহিনী। ড্রাগন লাইট নিয়ে ভিতরে যাওয়া হয়। দীর্ঘ দেড় ঘন্টার অপারেশনের পর অবশেষে আত্মসমর্পণ করেন সিআইএসএফ অফিসার। তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা দাবি করেছেন, এদিন সন্ধ্যে সাড়ে ছ’টা নাগাদ আচমকাই যাদুঘরের ভিতর থেকে গুলি চলার শব্দ শোনা যায়। শনিবার স্বাভাবিকভাবেই যাদুঘরে ভিড় থাকে। এই ঘটনার পর ক্রমশই বাড়তে থাকে প্রত্যক্ষদর্শীদের ভিড়। তবে ওই সিআইএসএফ জওয়ানের গুলিতে কোনও সাধারণ মানুষ জখম হয়েছেন কিনা সেই বিষয়ে কিছু জানা যায়নি। এমনকি ঠিক কী কারণে ওই অফিসার গুলি চালিয়েছেন তাও পরিষ্কার নয়।