রবিবার, ০২ অক্টোবর, ২০২২

অসুস্থ পার্থ! হুইল চেয়ারে বসেই গেলেন এসএসকেএম-এর কার্ডিওলডির আইসিসিইউয়ে

আত্রেয়ী সেন

প্রকাশিত: জুলাই ২৩, ২০২২, ১১:০৫ পিএম | আপডেট: জুলাই ২৩, ২০২২, ১১:১০ পিএম

অসুস্থ পার্থ! হুইল চেয়ারে বসেই গেলেন এসএসকেএম-এর কার্ডিওলডির আইসিসিইউয়ে
অসুস্থ পার্থ! হুইল চেয়ারে বসেই গেলেন এসএসকেএম-এর কার্ডিওলডির আইসিসিইউয়ে

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ এসএসসি দুর্নীতি মামলায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ২ দিন ইডির হেফাজতে রাখার নির্দেশের পরই ময়দানে নেমে পড়েন পার্থর আইনজীবীরা। তাঁরা আদালতে পার্থর পক্ষে বলেন যে, পার্থর বিরুদ্ধে কোনও প্রমাণ দিতে পারেনি ইডি। এর পাশাপাশি তিনি অসুস্থ। তাঁর বুকে ব্যথা বেড়েছে। তাই প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রীকে কোনও সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে যেতে দেওয়া হোক। এদিন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের আবেদনে সাড়া দেয় ব্যাঙ্কশাল কোর্ট। এরপরই তিনি আদালত থেকে রওনা দেন এসএসকেএম হাসপাতালের উদ্দেশে।  

এদিন সন্ধের সময় ইডি-র আধিকারিক ও কেন্দ্রীয় বাহিনীর ঘেরাটোপে ব্যাঙ্কশাল কোর্ট থেকে এসএসকেএম-এ গিয়ে নামেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। অসুস্থ পার্থর জন্য আনা হয় হুইল চেয়ার। সেই চেয়ারে করেই তিনি ইমারজেন্সি বিভাগে যান। জানা গিয়েছে, বুকে ব্যথা রয়েছে শিল্পমন্ত্রীর। গত ২৪ ঘণ্টায় তাঁর দুবার চেকআপ হয়েছে। 

এদিকে, সূত্রের খবর, এসএসসি দুর্নীতি মামলায় ইডি-র হাতে গ্রেফতার হওয়া পার্থর এসএসকেএমে আসার খবরের পরই উডবার্ন ওয়ার্ডের ১০৩ নম্বর ঘরটি তৈরি রাখা হয়। যদিও আপাতত তাঁকে রাখা হয়েছে কার্ডিওলডির আইসিসিইউয়ের ১৮ নম্বর বেডে। রক্ত পরীক্ষার পাশাপাশি আরও একাধিক পরীক্ষা করা হচ্ছে তাঁর। এদিন এসএসকেএম-এ আসার পর, ইন্টেনসিভ করোনারি কেয়ার ইউনিটের ১৮ নম্বর কেবিনে তাঁকে পরীক্ষা করেন নেফ্রোলজি, কার্ডিয়োলজি, এন্ডোক্রিনোলজির বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকেরা। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের চিকিৎসায় ৬ জনের একটি দল তৈরি করা হয়েছে। তাঁরাই পার্থের চিকিৎসা করছেন বলেই জানা গিয়েছে। 

উল্লেখ্য, রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে দীর্ঘ ২৭ ঘণ্টা জেরার পর আজ সকাল ১০ টা নাগাদ গ্রেফতার করে ইডি। ইডি-র তরফে অভিযোগ, টাকার উৎস নিয়ে বারবার বয়ান বদলেছেন মন্ত্রী। পাশাপাশি তাঁর বিরুদ্ধে তদন্তে অসহযোগিতার অভিযোগও রয়েছে। পার্থর পাশাপাশি পার্থ ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাটে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার করা হয় ২১ কোটি টাকা ও বিপুল টাকার গহনা ও বিদেশি মূদ্রা। অর্পিতাকেও গ্রেফতার করেছে ইডি। 

এদিকে, এদিন পার্থর গ্রেফতারির পর পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গ্রেফতারির পর সাংবাদিক সম্মেলন করল তৃণমূল কংগ্রেস। শনিবার তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব একটি বৈঠক করেন। দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কার্যালয়ে এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ফিরহাদ হাকিম, অরূপ বিশ্বাস এবং কুণাল ঘোষ। এরপর এদিনের বৈঠক শেষে শীর্ষ নেতারা তৃণমূল ভবনে একটি সাংবাদিক বৈঠকও করেন।

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের পাশে দল দাঁড়ালেও, পার্থ ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে দলের কোনও যোগ যে নেই তা আরও একবার স্পষ্ট করে দেওয়া হল। এদিন বৈঠকে দলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন যে, ‘যে ঘটনাটি ঘটেছে তা প্রথম গতকাল ED-র সূত্রে জানতে পারি। খবর আসে, একজন মহিলার বাড়ি থেকে টাকা উদ্ধার হয়েছে। তার উপর দাঁড়িয়ে তৃণমূল স্পষ্টভাবে জানাচ্ছে এই টাকার সঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের কোনও সম্পর্ক নেই। যাঁর বাড়ি থেকে টাকা উদ্ধার হয়েছে তাঁর সঙ্গে তৃণমূলের কোনও সম্পর্ক নেই। এই নিয়ে তাঁর আইনজীবীরা উত্তর দিতে পারবেন। এর সঙ্গে কোনওভাবে একটা সম্পর্কের কথা বলে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমরা খুব স্পষ্টভাবে জানাচ্ছি তৃণমূল কংগ্রেস আইন এবং আদালতের উপর বিশ্বাস রাখে। আমরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে দেখেছি কেন্দ্রীয় এজেন্সির তদন্ত দীর্ঘমেয়াদি হয়। কিন্তু, এক্ষেত্রে আমরা চাই দ্রুত তদন্ত শেষ করা হোক। টাকার উৎস কী? তদন্ত করে আদালতে জানান। পাশাপাশি, নোটবন্দির পরেও এত টাকা এল কোথা থেকে? বিচারে যদি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হয় সেক্ষেত্রে তৃণমূল কংগ্রেস তাঁর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করব।’