বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২

উত্তরকাশীতে দুর্ঘটনায় ৫ বাঙালি পর্যটকের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ মমতার, দেহ ফেরাতে সাহায্যের আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর

আত্রেয়ী সেন

প্রকাশিত: মে ২৬, ২০২২, ০১:০৬ পিএম | আপডেট: মে ২৬, ২০২২, ০১:০৬ পিএম

উত্তরকাশীতে দুর্ঘটনায় ৫ বাঙালি পর্যটকের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ মমতার, দেহ ফেরাতে সাহায্যের আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর
উত্তরকাশীতে দুর্ঘটনায় ৫ বাঙালি পর্যটকের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ মমতার, দেহ ফেরাতে সাহায্যের আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ উত্তরকাশীতে পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে এরাজ্যের ৫ বাঙালি পর্যটকের। এই ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। স্বজন হারানোর বেদনায় কাতর নিহত ৫ বাঙালি পর্যটকের পরিবার। এখন শুধুই ঘরে দেহ ফেরার অপেক্ষায় পরিজনেরা। এদিকে, নিহতদের দেহ রাজ্যে ফেরাতে প্রয়োজনীয় সবরকম ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

বৃহস্পতিবার সকালেই টুইট করে মুখ্যমন্ত্রী নিহত ৫ বাঙালি পর্যটকের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান। টুইটে তিনি লেখেন, ‘পাঁচ পর্যটকের দেহ বুধবার রাতে হৃষীকেশের এইমসে রাখা হয়। নিহতদের পরিজনেরা দেহ নিয়ে আসার জন্য দিল্লি থেকে হৃষীকেশ যাবেন। সেখান থেকে মরদেহ বাংলায় ফেরত নিয়ে আসা হবে।’ ইতিমধ্যেই মৃত ৫ পর্যটকের দেহ ফেরত আনার ক্ষেত্রে সবরকম সাহায্যের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।  

উল্লেখ্য, বুধবার চারধাম যাত্রায় উত্তরকাশীর পথে ৯৪ নম্বর জাতীয় সড়কে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে। হরশিলের কান্দি সৌদ তেহসিলের কাছে আচমকাই গাড়িতে থাকা সিলিন্ডারে বিস্ফোরণ ঘটে। সঙ্গে সঙ্গেই গভীর খাদে ছিটকে পড়ে পর্যটক বোঝাই গাড়ি। গাড়ির চালক-সহ সকলেই ঘটনাস্থলেই আগুনে ঝলসে প্রাণ হারান। মৃতদের মধ্যে তিনজন গড়িয়ার বাসিন্দা এবং একই পরিবারের সদস্য। এরা হলেন মদনমোহন ভুঁইয়া (৫৩), তাঁর স্ত্রী ঝুমুর ভুঁইয়া (৪৮) এবং ছেলে নীলেশ ভুঁইয়া(২১)। আর অন্য দু’জন হলেন, প্রদীপ দাস (৪৭) ও দেবমাল্য দেবনাথ (৪৩)। তাঁরা উত্তর ২৪ পরগণা জেলার বারাকপুর এবং নৈহাটির বাসিন্দা। 

এদিকে ভাইজ্যাগ যাওয়ার পথে ওড়িশার দারিংবাড়িতে ভয়াবহ পথ দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছেন এ রাজ্যের ৬ বাঙালি পর্যটক। নিহতেরা সকলেই হাওড়ার উদয়নারায়ণপুরের বাসিন্দা। এই দুর্ঘটনায় আহত আরও বেশ কয়েকজন। বৃহস্পতিবার সকালে মৃত ৬ পর্যটকের দেহ হাওড়ার উদয়নারায়ণপুরে এসে পৌঁছয়। ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে তাঁদের শেষকৃত্যও।