“সাংবিধানিক সীমা লঙ্ঘন করে কাজ করছেন”, রাজ্যপাল ধনকড়ের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক বিমান বসু

"সাংবিধানিক সীমা লঙ্ঘন করে কাজ করছেন", রাজ্যপাল ধনকড়ের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক বিমান বসু

রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়কে নিয়ে এবার বিস্ফোরক হয়ে উঠলেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু। রাজ্যপালের কাজের তীব্র সমালোচনা করলেন তিনি৷ বুধবার এক সাংবাদিক বৈঠকে বিমান বসু বললেন, “রাজ্যপাল সাংবিধানিক সীমা লঙ্ঘন করে কাজ করছেন।” রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলে দেন তিনি।

রাজ্যের সঙ্গে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের সংঘাত এখনও অব্যাহত। এর মধ্যেই দিল্লি সফরে গিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। সেখানে কয়লামন্ত্রী প্রহ্লাদ যোশীর সঙ্গে বৈঠকও করেছেন। তা নিয়েই এবার সমালোচনার সুর চড়ালেন বিমান বসু। এদিন আলিমুদ্দিনে বিমান বললেন, “রাজ্যপাল উত্তরবঙ্গে বা একাধিক জায়গায় গিয়ে সব জায়গাতেই বিজেপি নেতাদের সঙ্গে নিয়েই ঘুরছেন। তিনি একজন বিজেপি নেতার মতোই কাজ করছেন। উনি কোথাও যেতে পারেন না, তা নয়। কিন্তু, বিজেপি নেতাদের নিয়ে ঘুরছেন কেন? এটা একজন রাজ্যপালের ভূমিকা হতে পারে না। রাজ্যপাল তাঁর সাংবিধানিক সীমা লঙ্ঘন করেছেন।”

এছাড়াও রাজ্যপালের বিরুদ্ধে আরও অভিযোগ তোলেন বাম নেতা বিমান বসু। বিজেপি বিধায়কের ক্ষেত্রে রাজ্যপাল কেন এত নমনীয়? বিজেপি বিধায়কদের সঙ্গে তিনি বসে বৈঠকই বা করছেন কেন? এসব প্রশ্নেও রাজ্যপালকে বিঁধেছেন বিমান। রাজনৈতিক মহলের বড় অংশের মতে, বিজেপির সঙ্গে বামেদের অবস্থান সুখকর নয়৷ বামফ্রন্টের তরফে বিজেপির প্রতি বিষোদগারও দেখা গিয়েছে। এর মধ্যে বিমান বসুর এই সমালোচনার সুর বিজেপির ওপর চাপ কিছুটা হলেও বাড়াতে পারে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

প্রসঙ্গত, রাজ্যপালের বিরুদ্ধে এর আগে স্বজনপোষণের অভিযোগ তুলেছিল তৃণমূল। তাঁর বিরুদ্ধে স্বজনপোষণের অভিযোগে ট্যুইট করেছিলেন মহুয়া মৈত্র। তৃণমূল বিধায়ক তাপস রায়ও বলেছেন, “রাজ্যপাল বিজেপির দিকে ঝুঁকে রয়েছেন। উনি যেদিন থেকে বাংলায় এসেছেন, সেদিন থেকেই একটি রাজনৈতিক দলেরই মুখপাত্র হিসেবে কাজ করছেন।” অন্যদিকে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের মতে, “তৃণমূল যাঁদের কণ্ঠস্বর রোধের চেষ্টা করছে, রাজ্যপাল তাঁদের দাবীই তুলে ধরছেন।” সবমিলিয়ে রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত যেন দিনের পর দিন জোরালো হচ্ছে।