অবশেষে ‘খাঁচাবন্দি’ বাঘ! খোঁজ মিলল লুকিয়ে থাকা ডিয়ার পার্কের চিতাবাঘের

অবশেষে ‘খাঁচাবন্দি’ বাঘ! খোঁজ মিলল লুকিয়ে থাকা ডিয়ার পার্কের চিতাবাঘের
অবশেষে ‘খাঁচাবন্দি’ বাঘ! খোঁজ মিলল লুকিয়ে থাকা ডিয়ার পার্কের চিতাবাঘের

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ অবশেষে ডিয়ার পার্কের নিখোঁজ চিতাবাঘের খোঁজ মিলল ১৭ ঘণ্টা পর। শুধু খোঁজ পাওয়াই নয়, তাঁকে খাঁচাবন্দিও করা সম্ভব হল। জানা গিয়েছে, লোকালয়ে নয়, ডিয়ার পার্কের ভিতরেই জঙ্গলে লুকিয়ে ছিল সে দীর্ঘ কয়েক ঘণ্টা। তবে, দীর্ঘ সময়ের চেষ্টায় ঘুমপাড়ানি গুলি ছুঁড়ে বাঘটিকে ফের খাঁচাবন্দি করেন বনকর্মীরা। এর সঙ্গে সঙ্গে স্বস্তি ফিরল ঝাড়গ্রামে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার বিকেলে আচমকাই ঝাড়গ্রামের ডিয়ার পার্কে, খাঁচা থেকে পালিয়ে গিয়েছিল একটি চিতাবাঘ। জানা গিয়েছে, খাঁচার জাল মেরামতির কাজ চলছিল। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, সেই মেরামতির ত্রুটির কারণে সম্ভবত খাঁচায় কিছুটা ফাঁক তৈরি হয়েছিল। আর সেই ফাঁক দিয়েই বাঘটি পালিয়ে যায়। সন্ধের দিকে ঘটনাটি নজরে আসে ডিয়ার পার্ক কর্তৃপক্ষের। সঙ্গে সঙ্গেই খবরটি ছড়িয়ে পড়ে চারদিকে। এর জেরে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন এলাকাবাসী। বাঘ বাইরে ঘুরছে সেই সন্দেহে ডিয়ার পার্ক লাগোয়া এলাকায় স্থানীয় বাসিন্দাদের সতর্ক করতে শুরু হয় মাইকিং। বাঘের খোঁজে তল্লাশিতে নামেন বন দফতরের আধিকারিকরা।

এদিন সকালে তল্লাশির গতি আরও বাড়ানো হয়। কিন্তু ডিয়ার পার্কের বাইরে নয়, দুপুরের দিকে ডিয়ার পার্কের ভিতরেই জঙ্গলে নিখোঁজ চিতা বাঘের দেখা মেলে। প্রথমে বেশ কয়েকবার ঘুমপাড়ানি গুলি ছুঁড়ে, এমনকী, ডাল দিয়ে ঘিরে বাঘটিকে কাবু করার চেষ্টা হয়। কিন্তু প্রতিবার ঝোপের আড়ালে লুকিয়ে পড়ছিল সে। এভাবেই কেটে যায় ঘণ্টা খানেক।

তবে, শেষপর্যন্ত ঘুমপাড়ানি গুলিতেই চিতাবাঘটিকে কাবু করে, খাঁচাবন্দি করা হয়। আপাতত তার চিকিৎসা চলছে বলে জানা গিয়েছে। বাঘটিকে ঝাড়গ্রামেই রাখা হবে নাকি উত্তরবঙ্গে পাঠিয়ে দেওয়া হবে, সে বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।