উত্তরপ্রদেশে এক দুষ্কৃতীর খোঁজে গিয়ে, তার সাগরেদদের হাতে খুন এক পুলিশ কর্মী!

উত্তরপ্রদেশে এক দুষ্কৃতীর খোঁজে গিয়ে, তার সাগরেদদের হাতে খুন এক পুলিশ কর্মী!
উত্তরপ্রদেশে এক দুষ্কৃতীর খোঁজে গিয়ে, তার সাগরেদদের হাতে খুন এক পুলিশ কর্মী! / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বিকাশ দুবের স্মৃতিতে এখন ধুলো জমেনি। এখনও সেই স্মৃতি টাটকাই বলা যায়। তার মধ্যে ফের একবার উত্তরপ্রদেশে এক মদ-মাফিয়ার খোঁজে গিয়ে, তার সঙ্গীদের হাতে খুন হলেন এক পুলিশ কর্মী। গুরুতর আহত হয়ে আরও একজন ভর্তি হাসপাতালে। এই ঘটনার পর, পরিস্থিতি সামাল দিতে আসরে নেমেছেন খোদ উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

মঙ্গলবারই ওই পুলিশকর্মীর মৃত্যুর পর, কড়া ব্যবস্থা গ্রহণ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন যোগী আদিত্যনাথ। এরপরই শুরু হয়, ওই দুষ্কৃতীদের খোঁজে পুলিশের চিরুনি তল্লাশি। এই ঘটনার মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এনকাউন্টারে মৃত্যু হয় ওই মাফিয়ার ভাইয়ের। বাকিদের খোঁজে তল্লাশি জারি রয়েছে।

সূত্রের খবর, উত্তরপ্রদেশের কাশগঞ্জ জেলার নাগলা ধীমের গ্রামে অবৈধ মদের কারখানা গড়ে উঠেছিল বলে খবর পায় সেখানকার পুলিশ। সেই কারখানা বন্ধ করতেই মঙ্গলবার সেখানে উপস্থিত হন সাব ইন্সপেক্টর অশোক ও কনস্টেবল দেবেন্দ্র। এদিকে গ্রামে ঢুকতেই, মদ-মাফিয়া মোতির সঙ্গীরা ওই দুই পুলিশকর্মীর উপর চড়াও হয়। লাঠি-বল্লম দিয়ে তাঁদের মারধর করা হয়। এই মারধরের জেরে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় কনস্টেবল দেবেন্দ্রর। গুরুতর আহত অবস্থায় সেখান থেকে কোনওরকমে পালিয়ে প্রাণে বাঁচেন সাব ইন্সপেক্টর অশোক। তিনিই এরপর পুরো ঘটনা উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের জানান।

এই পুরো ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তিনি পরিষ্কার জানিয়ে দেন যে, উত্তরপ্রদেশে মাফিয়ারাজ কোনও মতেই বরদাস্ত করা হবে না। এই ঘটনার পর, অপরাধীদের জন্য জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছে সে রাজ্যের সরকার। এর পরই বিশাল পুলিশবাহিনী ফের একবার অভিযান চালায়। ভোররাতে গোটা গ্রাম ঘিরে ফেলা হয়। মোতি ও তার সাঙ্গপাঙ্গদের আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেওয়া হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। কিন্তু পুলিশের নির্দেশ স্বত্ত্বেও ওই দুষ্কৃতীর দল পাল্টা গুলি চালায়। সেই সময় পুলিশের গুলিতে মদচক্রের মূল অভিযুক্তের ভাইয়ের মৃত্যু হয়। একথা জানিয়েছেন, কাশগঞ্জে্র এস পি মনোজ সরকার। তবে এখনও খোঁজ মেলেনি মূল অভিযুক্ত মোতির।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বছরই উত্তরপ্রদেশের আরেক মাফিয়া বিকাশ দুবেকে গ্রেপ্তার করতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছিলেন সাত পুলিশ কর্মী। পরে ওই মাফিয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়। তবে, পুলিশি হেফাজত থেকে পালানোর সময় তার মৃত্যুও হয়।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.