শাসক দলের মদতেই একটি বিশেষ সম্প্রদায় উৎসাহ পাচ্ছে, হরিদেবপুর কাণ্ডে বিস্ফোরক লকেট চট্টোপাধ্যায়

শাসক দলের মদতেই একটি বিশেষ সম্প্রদায় উৎসাহ পাচ্ছে, হরিদেবপুর কাণ্ডে বিস্ফোরক লকেট চট্টোপাধ্যায়
শাসক দলের মদতেই একটি বিশেষ সম্প্রদায় উৎসাহ পাচ্ছে, হরিদেবপুর কাণ্ডে বিস্ফোরক লকেট চট্টোপাধ্যায়

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ এক নববধূর অস্বাভাবিক মৃত্যুকে কেন্দ্র করে শুক্রবার উত্তপ্ত হয়ে ওঠে হরিদেবপুর। বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় মহিলা মোর্চার কিছু সদস্যকে ঘটনাস্থলে গেলে স্থানীয় মহিলারা পুলিশি আচরণের প্রতিবাদে ক্ষোভ জানান। এ দিন দুপুরে বেহালার জেমস লঙ সরণি-র বিজেপি অফিস থেকে লকেটের নেতৃত্বে একটি মিছিল যায় কাটপোল, খালপাড়ের এনি সরনিতে। এতে অংশ নেন বিজেপি-র রাজ্য সম্পাদক সঙ্ঘমিত্রা চৌধুরী।

সম্প্রতি খালপাড়ের এক বধূর অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় কিছু বাসিন্দার অভিযোগ, পাপিয়া মন্ডল নামে ওই যুবতীকে হাবুল শেখ নামে এক যুবক বিয়ে করে তাঁকে হত্যা করেছে। বধূটি সন্তানসম্ভবা ছিল। এর পর পুলিশ একটি অভিযোগপত্র লিখে জোর করে মৃতার বাবা-মাকে দিয়ে সই করিয়ে নেয়। এর পর কী লেখা হল এফআইআর-এ, মৃতার তরফে লোকজন তা দেখতে চাইলে পুলিশ দেখাচ্ছে না।

লকেট অভিযোগ করেন, “এখানকার মেয়র মিনি পাকিস্থান বলেছেন শহরের একাংশকে। এদের মদতে জোর করে কিছু মুসলিম হিন্দু মেয়েকে বিয়ে করছে। এর পর যখন মনে হয়, খুন করে ঝুলিয়ে দেয়। এই লাভ জিহাদ বন্ধ হোক। এ ব্যাপারে দোষীদের শাস্তি হবে না। কারণ ওদের ভোট শাসক দলের দরকার। এক্ষেত্রে মৃতার পরিবার অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তি দাবি করলেও পুলিশ ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা কছে। মৃতার মায়ের পূর্ণ অধিকার আছে এফআইআর প্রতিলিপি দেখার। অথচ এখনও এফআইআর প্রতিলিপি দেখাচ্ছে না। আমরা সবাই মিলে হরিদেবপুর থানা ঘেরাও করব”।

লাভ জিহাদের ব্যাপারে কড়া আইন প্রনয়ণের প্রয়োজনীয়তার কথা বলে লকেট বলেন, “আগামী দিনে বাংলার মেয়েদের, ভারতের মেয়েদের সাবধান হতে বলছি। এদের থেকে সাবধান হোন। তৃণমূল এদের সাহায্য করছে। যেভাবে মেয়েটিকে মারা হয়েছে, সেভাবে অভিযুক্তকে ফাঁসি দেওয়া হোক”।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.