মোদির কথা ধরেই পাল্টা কটাক্ষ মহুয়ার, নাম না করে বিঁধলেন এনআরসি নিয়েও

মোদির কথা ধরেই পাল্টা কটাক্ষ মহুয়ার, নাম না করে বিঁধলেন এনআরসি নিয়েও
মোদির কথা ধরেই পাল্টা কটাক্ষ মহুয়ার, নাম না করে বিঁধলেন এনআরসি নিয়েও/Image Source- Screengrab from Facebook Video Posted By @MahuaMoitraOfficial

নির্বাচনের আগে বহিরাগত তত্ত্ব খাড়া করে নিজেদের পায়ের তলার মাটি শক্ত করতে চাইছে রাজনৈতিক দল গুলি। এই পরিস্থিতিতে কোন ভারতীয় বহিরাগত নয় বলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে পাল্টা জবাব দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এরপরে মোদির ভাষণ কে হাতিয়ার করে উল্টে কটাক্ষ করলেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মিত্র।

নির্বাচনের আগে বহিরাগত তথ্যকে হাতিয়ার করছে রাজ্যের শাসক দল। বিশেষ করে গেরুয়া শিবিরের কেন্দ্রীয় নেতা মন্ত্রীদের প্রত্যেককেই বহিরাগত তকমা দিচ্ছে ঘাসফুল শিবির। এই আবহে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে তোপ দেগে মোদি বলেন, “ভারতে কেউ বহিরাগত নয়, বঙ্কিমবাবু, রবি ঠাকুর, মাতঙ্গিনী হাজরার ভূমিতে আমাদের বহিরাগত বলছেন। এখানে কোন ভারতবাসী বহিরাগত নয়।”

এই প্রসঙ্গ ধরেই নিজের টুইটারে সরব হয়েছেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। তিনি লেখেন, “আজ বাংলায় এসে প্রধানমন্ত্রী বলছেন কোন ভারতীয় বহিরাগত নন। প্রত্যেকে ভারত মাতার সন্তান। এই বিষয়টি রেকর্ড হয়ে থাকলো স্যার। এখানে যারা প্রজন্মের পর প্রজন্ম বাস করছেন যাদের সন্তান এই মাটিতেই জন্ম নিয়েছে। তাদের যখন হয়রান করবেন, এই কথাটা স্মরণ করিয়ে দেওয়া হবে”।

মহুয়া মৈত্রের এই টুইটের পর বুঝতে অসুবিধা থাকে না যে তিনি নাগরিকত্ব আইন নিয়ে কটাক্ষ করেছেন কেন্দ্রীয় সরকারকে। বাংলা এবং আসামে এনআরসি করতে চাইলেও সেটি বারবার বিরুদ্ধে গিয়েছে গেরুয়া শিবিরের। এদিকে তাদের ইশতেহারে সিএএর কথা লেখা রয়েছে। তবে বাংলায় কোনভাবেই নাগরিকত্ব আইন প্রণয়ন করা যাবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে শাসকদল। ভোটের মুখে তাই নাগরিকত্ব আইন কে হাতিয়ার করে আরও একবার কেন্দ্রীয় সরকারকে কোণঠাসা করতে চাইলেন কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সাংসদ।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.