ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়ার উপসর্গহীনরা চিন্তা বাড়াচ্ছে পুরসভার

ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়ার উপসর্গহীনরা চিন্তা বাড়াচ্ছে পুরসভার
ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়ার উপসর্গহীনরা চিন্তা বাড়াচ্ছে পুরসভার

করোনা আবহে শহরে মাথা চারা দিচ্ছে ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়া। যা স্বাভাবিক ভাবেই উদ্বেগ বাড়াচ্ছে প্রশাসনের। বুধবার এ বিষয়ে প্রাক্তন মেয়র পরিষদ স্বাস্থ্য তথা বর্তমান পুর প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য অতীন ঘোষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন কলকাতা বস্তি ফেডারেশন ও বাম পরিষদীয় দলের সদস্যরা। এই মর্মে সংগঠনের পক্ষ থেকে ডেপুটেশন দিয়ে কলকাতা পুরসভার সজাগ দৃষ্টি নিক্ষেপের আহ্বান জানানো হয়।

উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রশাসক মন্ডলীর অন্যতম সদস্য অতীন ঘোষ জানান, “ওষুধের কোর্স অনেকে সম্পূর্ণ না করায় বাড়ছে জটিলতা। ম্যালেরিয়ার বাহক হিসেবে কাজ করছেন উপসর্গহীনরা। গত বছরের থেকে এখন ১৯ শতাংশ বেশি ম্যালেরিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা। কলকাতা পুরসভার তার প্রয়োজন মতো সমস্ত ব্যবস্থা ইতিমধ্যেই নিয়েছে।”

অতীন ঘোষ পরিসংখ্যান তুলে ধরে দাবি করেন, “কলকাতায় এবছর ৬৮% ডেঙ্গি ছড়ায় তা এই মুহূর্তে কমে ১৯% আছে। শহরে এবছর ডেঙ্গিতে আক্রান্ত ৮০০০ জন ও ম্যালেরিয়াতে প্রায় ১০০০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। তবে তা গত বছরের তুলনায় অনেক কম। তাই অন্যান্য বছরগুলোর তুলনায় ডেঙ্গু ম্যালেরিয়া আর অনেকটাই কম শহরে। করোনা সংক্রমণও আতঙ্কিত হওয়ার মতো নয়। তবে সমস্যা হলো করোনা সংক্রমনের মত এখন ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়া সংক্রমণ এর ক্ষেত্রেও উপসর্গহীন রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি হয়েছে। যা রীতিমত চিন্তায় ফেলেছে কলকাতা পুরসভার চিকিৎসকদের।’

কলকাতা পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছিলেন, “পরিস্থিতি যাতে নিয়ন্ত্রণ থাকে আপ্রাণ চেষ্টা করছি। প্রচার চলছে। এখন নিয়ন্ত্রণে। সকলকে সচেতন হতে হবে। ময়লা যেখানে সেখানে ফেলা যাবে না। পরিষ্কার যাতে থাকে সেটা দেখা আমাদের কাজ। তাহলে অসুখ হবে না আমাদের।”