কালিয়াচক কাণ্ডে ধৃত মহম্মদ আসিফের সঙ্গে কি ইন্ডিয়ান মুজাহিদিনের যোগ রয়েছে? খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা!

কালিয়াচক কাণ্ডে ধৃত মহম্মদ আসিফের সঙ্গে কি ইন্ডিয়ান মুজাহিদিনের যোগ রয়েছে? খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা!
কালিয়াচক কাণ্ডে ধৃত মহম্মদ আসিফের সঙ্গে কি ইন্ডিয়ান মুজাহিদিনের যোগ রয়েছে? খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা!

মালদহের কালিয়াচক হত্যাকাণ্ডে নয়া মোড়। ইতিমধ্যেই একের পর এক আঁতকে ওঠার মতো তথ্য সামনে এসেছে। এবার মাথা চাড়া দিচ্ছে অন্য একটি সন্দেহও। কালিয়াচক হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে কি কোনও জঙ্গী গোষ্ঠীর যোগ রয়েছে? ধৃত মহম্মদ আসিফ কি ইন্ডিয়ান মুজাহিদিনের সদস্য? অন্তত তার কথায় তো তা-ই উঠে আসছে। ইতিমধ্যেই বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারী অফিসাররা।

হত্যাকাণ্ডের তদন্ত শুরু করে ক্রমশ চোখ কপালে উঠছে তদন্তকারী অফিসারদের। জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত মহম্মদ আসিফ প্রায় দু’বছর বাড়ি থেকে নিখোঁজ ছিলেন। হত্যাকাণ্ডের পর এর জাল কতদূর পর্যন্ত বিস্তৃত তা জানতে, ধৃত আসিফকে ইতিমধ্যেই দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন তদন্তকারী অফিসাররা। জেরায় আসিফের কথাবার্তা শুনে তদন্তকারীরা অনুমান করছেন, সম্পূর্ণ মগজ ধোলাই করা হয়েছে তার। তার সঙ্গে ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন বা অন্য কোনও জঙ্গি গোষ্ঠীর যোগ থাকা অসম্ভব কিছু নয়। তদন্তকারীদের সন্দেহ, সাইবার ক্রাইমের সঙ্গে যুক্ত কোনও আন্তর্জাতিক আন্ডারওয়ার্ল্ড গ্যাংয়ের সদস্যও হতে পারে মহম্মদ আসিফ।

এর মধ্যেই আসিফদের বাড়ির নকশা ঘিরেও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন তদন্তকারীরা। তাঁদের মতে, এই ধরনের বাড়ি তৈরির পিছনে বড় কোনও পরিকল্পনা রয়েছে। সেই কারণে বাড়ির নকশা তৈরির সূত্রের সন্ধান চালাচ্ছেন তাঁরা। ইতিমধ্যেই বিভিন্ন গোয়েন্দা এজেন্সির কাছে পাঠানো হয়েছে বাড়ির নকশা। সেখান থেকেই খতিয়ে দেখবেন তদন্তকারীরা।

উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই আফিসের দুই বন্ধুর নাম জানার পরেই তাদের বাড়িতে হানা দিয়ে বিশাল অস্ত্রভাণ্ডারের সন্ধান পেয়েছে পুলিশ। দুই বন্ধুর বাড়ি থেকেই উদ্ধার হয়েছে ৫টি ৭ এমএম পিস্তল, ৮৪ রাউন্ড গুলি ও ১০টি ম্যাগাজিন। কোথা থেকে ওই বিপুল অস্ত্র-গুলি তাদের কাছে এসেছে, সেটাই জানার চেষ্টা করছে পুলিশ। পাশাপাশি, কী কারণে ওইসব অস্ত্র মজুত করা হয়েছিল এবং এর সঙ্গে আসিফও জড়িত কিনা তাও খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।