নির্মম কাণ্ড! ছোট্ট ‘অপরাধে’র শাস্তিস্বরূপ ১০ বছরের শিশুর গায়ে গরম তরকা ঢেলে পুড়িয়ে দিল দোকানী

নির্মম কাণ্ড! ছোট্ট 'অপরাধে'র শাস্তিস্বরূপ ১০ বছরের শিশুর গায়ে গরম তরকা ঢেলে পুড়িয়ে দিল দোকানী
নির্মম কাণ্ড! ছোট্ট 'অপরাধে'র শাস্তিস্বরূপ ১০ বছরের শিশুর গায়ে গরম তরকা ঢেলে পুড়িয়ে দিল দোকানী

অপরাধ খুবই সামান্য! কিন্তু সেই অপরাধের শাস্তি যে এত মারাত্মক হতে পারে তা কে আর কল্পনা করতে পেরেছিল। ১০ বছরের শিশুটির দোষ বলতে ঠেলা গাড়ির সামনে অজান্তে আখের খোসা ফেলা। সেই কারণে তার গায়ে গরম তরকা ফেলে পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল এক ফার্স্টফুড বিক্রেতার বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদার নলডুবি এলাকায়।

জানা গিয়েছে, ওই শিশুটির নাম বিশু শীল। বয়স মাত্র ১০। বাবা-মা মারা গিয়েছে। অভিভাবক বলতে শুধু দাদু আর দিদা। তাঁদের সঙ্গেই থাকত সে। সংসারে অভাব লেগেই থাকে। দিন গুজরানের জন্য তাই শহরের রাস্তায় বাদাম ফেরি করে বেড়ায় শিশুটি। মঙ্গলবার সন্ধে নাগাদ মালদার সুকান্ত মোড়ে এক ফার্স্টফুড ঠেলাগাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে সে আখ খাচ্ছিল। ওই সময় শিশুটির অজান্তে কিছু আখের খোসা দোকানের সামনে পড়ে যায়। এরপরই ওই দোকানী নাবালকের গায়ে গরম তরকা ফেলে দেয় বলে অভিযোগ।

নির্মম কাণ্ড! ছোট্ট 'অপরাধে'র শাস্তিস্বরূপ ১০ বছরের শিশুর গায়ে গরম তরকা ঢেলে পুড়িয়ে দিল দোকানী
নির্মম কাণ্ড! ছোট্ট ‘অপরাধে’র শাস্তিস্বরূপ ১০ বছরের শিশুর গায়ে গরম তরকা ঢেলে পুড়িয়ে দিল দোকানী

গরম জিনিস গায়ে পড়ায় শরীরের বেশ কিছু অংশ পুড়ে ঝলসে গিয়েছে শিশুটির। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ট্রাফিক পুলিশরা। তারাই শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করে। আপাতত মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শিশুটি। দোকানীর বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানা গিয়েছে।