কালীঘাটে পিকে, অভিষেকের সঙ্গে হওয়া বৈঠক ফাঁস! বিস্ফোরক অভিযোগ মমতার

কালীঘাটে পিকে, অভিষেকের সঙ্গে হওয়া বৈঠক ফাঁস! বিস্ফোরক অভিযোগ মমতার
কালীঘাটে পিকে, অভিষেকের সঙ্গে হওয়া বৈঠক ফাঁস! বিস্ফোরক অভিযোগ মমতার

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ পেগাসাস কাণ্ডে উত্তাল রাজনীতি। ফোনে আড়িপাতা কাণ্ডে কেন্দ্রীয় সরকারের উপর চাপ ক্রমশ বাড়াচ্ছেন তৃণমূল নেত্রী। এই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, কালীঘাটের বৈঠকের সমস্ত তথ্য ফাঁস হয়ে গিয়েছিল। অথচ ফোনে কথা বলেননি। তাও সব রেকর্ড হয়েছে। প্রশান্ত কিশোরের ফোনকে রেকর্ডার হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছ।

২১ জুলাই তৃণমূলের শহিদ স্মরণের সভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন যে, কালীঘাটের বৈঠকের সমস্ত তথ্য হ্যাক করে নেওয়া হয়েছিল। এবার এদিন নবান্নে তিনি জানালেন, কীভাবে গোটা বিষয়টা তিনি ধরতে পারলেন সেটা। তিনি বলেছেন, ‘কাল তো ছোট্ট ঘটনা বললাম। নির্বাচনের আগে কালীঘাটে আমার বাড়িতে একটা বৈঠক করেছিলাম আমি, সুব্রত বক্সী, অভিষেক আর পিকে। ফোনগুলি আমাদের কাছেই ছিল। একটা জায়গায় রেখেছিলাম। তবে, কেউ আমরা ফোনে কথা বলিনি। তাও ভিতরের পুরো মিটিংটা রেকর্ড করে নিয়েছে। কী করে নিল? আমি তো ক্যামরা আনাইনি। ভিডিয়ো করিনি। পিকের ফোনটা অডিট করতে গিয়ে দেখছে আমারা কী আলোচনা করছি ডিটেলসটা বেরিয়েছে। বুঝতে পারছেন, হাও ডেঞ্জারাস! পরিস্থিতি কোন দিকে গিয়েছে।’

মুখ্যমন্ত্রীর মতে, হোয়াটসঅ্যাপ কল, ফেসটাইম কোনওটাই আর নিরাপদ নয়। তিনি বলেন, ‘টোটালটাই রেকর্ডিং করে নিচ্ছে। ফোনটাই রেকর্ডার। আগে ভাবতাম হোয়াটসঅ্যাপ সেফ। নট অ্যাট অল সেফ। সবচেয়ে বড় আনসেফ। ফেসটাইম অডিয়ো ভেবেছিলাম সেফ। টোটাল আনসেফ। সব খেয়ে নিয়েছে পেগাসাস।’

উল্লেখ্য, আগেই পেগাসাস স্পাইওয়্যার ব্যবহার করে অভিষেক ও ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোরের ফোনে আড়িপাতা হয়েছে বলে প্রকাশিত হয়েছে বলছে রিপোর্ট। সেক্ষেত্রে তাঁর ফোনও বাদ পড়েনি বলে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী।

এ বিষয়ে তাঁর ব্যাখ্যা, ‘একজনের ফোন ট্যাপ করলে কত জনকে ট্যাপ করা যায় জানেন? ধরুন পিকে আমার ইলেকশনে কাজ করেছে। পিকে আমার ফোনে কথা বলছে। মানে আমার কথাও আড়ি পেতে নিল। অভিষেকের সঙ্গে রাজনৈতিক ব্যাপার নিয়ে দিনে ৫০ বার কথা বলি। ট্যাপ করে নিল। আমার সঙ্গে সাংবাদিক, অফিসারদের কথা হয়। টোটালটাই রেকর্ড করে নেয়। আজকে নয় দীর্ঘদিন ধরে বলেছি। এটা লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়ে প্রতীকী প্রতিবাদ।’

উল্লেখ্য, লক্ষ্মীবারে অর্থাৎ বৃহস্পতিবারে মন্ত্রিসভার বৈঠক বসেছিল নবান্নে। সূত্রের খবর, সেই বৈঠক চলাকালীন মন্ত্রিসভার সদস্যদের তিনি ফোন ব্যবহারের ক্ষেত্রে সাবধান থাকতে বলেন। সব ধরনের গোপনীয় এবং প্রয়োজনীয় কথা ফোনে না বলার পরামর্শ দেন মমতা। গুরুত্বপূর্ণ কথা সামনা-সামনি বলার উপরই জোর দেন তিনি।