‘আমার উপর রাগের কারণে অভিষেককে হয়রান করা হচ্ছে’, ভোট প্রচারে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হলেন মমতা

‘আমার উপর রাগের কারণে অভিষেককে হয়রান করা হচ্ছে’, ভোট প্রচারে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হলেন মমতা
‘আমার উপর রাগের কারণে অভিষেককে হয়রান করা হচ্ছে’, ভোট প্রচারে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হলেন মমতা

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ চলতি মাসের ৩০ তারিখ ভবানীপুর কেন্দ্রে উপনির্বাচন রয়েছে। এই কেন্দ্রের তৃণমূলের প্রার্থী খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাংলার একুশের নির্বাচনে নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপির শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দল তৃতীয়বারের জন্য বিপুল সংখ্যা গরিষ্ঠতায় জিতলেও, এই কেন্দ্রে পরাজিত হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাও তিনি মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসেছেন। তবে, এই মুহূর্তে তাঁকে নিজের মুখ্যমন্ত্রীর আসন ধরে রাখতে হলে, এই ভবানীপুর কেন্দ্রের উপনির্বাচনে জিতে আসতে হবে।

তবে, রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, এই আসনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয় একপ্রকার নিশ্চিত। আজ শুরু হল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্বাচনী প্রচার। আর ভবানীপুরের উপনির্বাচনে নেমেই কেন্দ্রীয় এজেন্সির অতি সক্রিয়তার বিরুদ্ধে সরব হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি নাম না করে কটাক্ষ করলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকেও।

মাঝে মাত্র দুদিন। কয়লা কাণ্ডে ৯ ঘণ্টা ধরে ইডি জেরা করেছে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে। কিন্তু এখনও মেটেনি জিজ্ঞাসাবাদ পর্ব। তাই আবারও একবার তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে তলব করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট।

আগের জিজ্ঞাসাবাদের পর ৪৮ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই ফের তলব করা হয়েছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে। সূত্রের খবর, বুধবারই অভিষেককে ইডির পক্ষ থেকে ফের নোটিশ দেওয়া হয়েছে। আর ফের একবার তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদককে তলব করতেই গর্জে উঠলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সরাসরি অভিযোগ করলেন যে, রাজনৈতিকভাবে লড়াই করতে না পেরেই, এজেন্সিকে কাজে লাগিয়ে দমানোর চেষ্টা করছে বিজেপি। সেই কারণেই ভবানীপুর উপনির্বাচনের প্রচারের শুরুতেই এই প্রসঙ্গের উত্থাপন করে রীতিমতো গর্জে উঠলেন নেত্রী। এদিন তিনি বললেন, ‘আমার উপর রাগের কারণে অভিষেককে হয়রান করা হচ্ছে। একদিন দীর্ঘ জেরার পর পরের দিন আবার ডাকছে।’

উল্লেখ্য, পুজোর আগেই রাজ্য সরকারের বিশেষ অনুরোধে শুধুমাত্র ভবানীপুরে ৩০ সেপ্টেম্বর উপনির্বাচনের দিন ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। সেদিনই আবার সাধারণ নির্বাচন হবে মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জ ও জঙ্গিপুর কেন্দ্রেও। ভবানীপুর কেন্দ্রে দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই প্রার্থী ঘোষণা করেছে তৃণমূল। এদিন চেতলা কর্মিসভা থেকেই ভোটে প্রচারে নেমে পড়লেন মমতা।

এদিকে কয়লা কাণ্ডে ৪৮ ঘণ্টার ব্যবধানে ফের একবার অভিষেককে তলব করা হয়েছে। এবার তাঁর কাছ থেকে বেশ কিছু নথি চাওয়া হয়েছে। এদিন চেতলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘কংগ্রেস, শরদ পওয়ারকে এজেন্সি দেখিয়ে জব্দ করেছে। অভিষেকের বিরুদ্ধে বেআইনি কেস থাকলে প্রমাণ করুক। তোমাকে প্রমাণ করতে হবে, তুমি চোর? কলকাতা থেকে মামলা কেন দিল্লিতে টেনে নিয়ে যাওয়া হল? নারদ মামলায় সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের নাম আছে’। এরপরই নাম না করে শুভেন্দুকে কটাক্ষ করে বলেন, ‘আসল চোরের নাম নেই’।

চেতলার কর্মীসভা থেকে তিনি বলেন, ‘যেই নির্বাচন ঘোষণা হয়েছে, এজেন্সি নাচতে শুরু করেছে৷ নরেন্দ্র মোদি এবং অমিত শাহ মিলে যা ইচ্ছে তাই করে যাচ্ছে৷ নির্বাচন ঘোষণা হল, অভিষেককে ডেকে পাঠালো, পার্থ চট্টোপাধ্যায় ডাক পেল৷’ এখানেই শেষ নয়, মমতার সংযোজন, ‘রাজনৈতিকভাবে এরা মোকাবিলা করতে পারেনা৷ কংগ্রেস, মুলায়ম সিং, শরদ পাওয়ারকে জব্দ করেছে এজেন্সি দেখিয়ে৷ আমাকে আঘাত করার জন্য অভিষেকের বিরুদ্ধে কেস করছে৷ ন’ঘণ্টা জেরা করার পর বলছে আবার এসো৷ কলকাতার মামলা দিল্লিতে ডেকে জেরা করছে৷’

তিনি এদিন আরও বলেন যে, ‘সকাল থেকে রাত কোভিডের টিকা নেই, বিজেপি-র দেখা নেই৷ গ্যাসের দাম বাড়ছে, পেট্রোল ডিজেলের দাম বাড়ছে, বিজেপি-র দেখা নেই৷ কৃষকরা দশমাস ধরে আন্দোলন করছে বিজেপি-র দেখা নেই৷ শুধু এজেন্সিকে ডেকে ডেকে বলছে একে গ্রেফতার করো, ওকে গ্রেফতার করো৷’

অন্যদিকে, নন্দীগ্রামের ভোটের ফলাফল এখন মামলা চলছে কলকাতা হাইকোর্টে। সেই প্রসঙ্গ উল্লেখ করে মমতা বলেন, ‘আমি একটা আসনে পরাজিত হয়েছি, কিন্তু আদালতে মামলা করেছি। নন্দীগ্রামে কাউকে ভোট করতে দেওয়া হয়নি। খালি ছাপ্পা ভোট হয়েছে। আমি চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়েছি। ১ টি বুথে গিয়ে দেখিয়েওছিলাম। আমার কথা শোনা হয়নি’।

এদিকে ভবানীপুরে কেন্দ্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে এখনও প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করতে পারেনি বিজেপি। কংগ্রেস যখন উপনির্বাচনে না লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তখন প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করে ফেলল জোট শরিক বামেরা। তাঁদের সম্ভাব্য় প্রার্থী তরুণ আইনজীবী শ্রীজীব বিশ্বাস। সূত্রের খবর তেমনই।