আর ফোঁটা নিতে আসবেন না সুব্রতদা! মমতার বাড়িতে বাতিল ভাইফোঁটার অনুষ্ঠান

আর ফোঁটা নিতে আসবেন না সুব্রতদা! মমতার বাড়িতে বাতিল ভাইফোঁটার অনুষ্ঠান
আর ফোঁটা নিতে আসবেন না সুব্রতদা! মমতার বাড়িতে বাতিল ভাইফোঁটার অনুষ্ঠান

প্রতিবছর ভাতৃদ্বিতীয়ায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে ফোঁটা নিতে আসতেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়। কিন্তু আলোর উৎসবের দিনই অন্ধকার করে না ফেরার দেশে পাড়ি দিয়েছেন রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী। এবার নিজের বাড়িতে ভাইফোঁটার অনুষ্ঠান বাতিল করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রত্যেক বছর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে ভাইফোঁটার দিন আনাগোনা থাকে দলের সমস্ত নেতাদের। খাওয়া-দাওয়া থেকে শুরু করে উপহার বিনিময়, আশীর্বাদ নেওয়া সব মিলিয়ে হইচই লেগে থাকে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে। কিন্তু এবারে সেইসব উৎসবে ছেদ পড়ল। একরাশ শূন্যতা রেখে না ফেরার দেশে পাড়ি দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিভাবকতুল্য প্রিয় দাদা সুব্রত মুখোপাধ্যায়। তাই মন খারাপ সকলের। সেই কারণেই বাতিল করা হলো এবারের ভাইফোঁটার অনুষ্ঠান।

আবে জানা গিয়েছে রীতিনীতি মেনে ভাতৃদ্বিতীয়ার আচার হবে। নিজের ভাইদের নিয়ম রক্ষার্থে শুধুমাত্র ফোঁটা দেবেন তৃণমূল সুপ্রিমো। কিন্তু জাঁকজমক করে সেই অনুষ্ঠান আর হবেনা। প্রতিবছর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অপেক্ষা করেন দলের একাধিক নেতাদের সঙ্গে কখন ফোঁটা নিতে আসবেন মেন্টর সুব্রত মুখোপাধ্যায়। কিন্তু এবারে পথ চেয়ে বসে থাকলেও আর কখনোই ভগ্নীসম মমতার কাছে ফোঁটা নিতে আসবেন না তিনি।

একই পরিস্থিতি সুব্রত মুখোপাধ্যায় এর অন্যতম সতীর্থ রাজ্যের মন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতেও। রাজ্যের বিদ্যুৎ মন্ত্রীর বাড়িতেও ভাইফোঁটার অনুষ্ঠান হয় বেশ বড় করেই। কিন্তু সদ্য সতীর্থকে হারিয়ে কার্যত শোকে বিহ্বল হয়ে বাকরুদ্ধ হয়েছেন তিনি। আর তাই এবছর তার বাড়িতেও বাতিল করা হলো ভাইফোঁটার অনুষ্ঠান। তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির মতোই কেবলমাত্র নিয়ম রক্ষার্থে তার বাড়িতেও হবে যতসামান্য ভাইফোঁটার আচার ও রীতিনীতি।