হ্যাট্রিক! তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

Mamata Banerjee has been sworn in as Chief Minister for the third time
হ্যাট্রিক! তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

এই নিয়ে তৃতীয়বার, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার সকালে রাজভবনে আয়োজিত শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথবাক্য পাঠ করিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর।

কোনও জাঁকজমক নয়, কোভিডের জন্য অনাড়ম্বর ছিল শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান। আমন্ত্রিতদের তালিকাও ছিল ছোট। তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার প্রাক্কালে, এদিন সকালে কালীঘাটের বাড়ি থেকে বের হয়ে রাজভবনের উদ্দেশে রওনা দেন মমতা। সাড়ে দশটার একটু আগে রাজভবনে পৌঁছে যান মমতা। কিছুক্ষন পরই শপথগ্রহণের মূল মঞ্চে মমতাকে তৃতীয়বারের জন্য পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথবাক্য পাঠ করিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর।

এদিন অনুষ্ঠান মঞ্চে বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যাকে ‘ছোটো বোন’ হিসেবে অভিহিত করলেন জগদীপ ধনকর। মমতার পাশে দাঁড়িয়ে ভোট-পরবর্তী হিংসা নিয়ে তোপ দাগলেন রাজ্যপাল।

এরপরেই শপথ গ্রহণ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমাদের প্রথম অগ্রাধিকার হল করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মোকাবিলা করা। আমি নবান্নে আলোচনা করব। সমস্ত রাজনৈতিক দলের কাছে আবেদন যে শান্তি বজায় রাখুন। আমি অশান্তি পছন্দ করি না। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অশান্তি করলে কড়া ব্যবস্থা নিতে পিছপা হব না। আমি অশান্তি পছন্দ করি না।”

২১-এর বিধানসভা নির্বাচনে ২৯২টি আসনের (দু’টি আসনে ভোটগ্রহণ হয়নি) মধ্যে ২১৩টি আসনে জয়লাভ করেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জয়ী হননি। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দীগ্রাম আসনে বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর কাছে পরাজিত হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেও, আগামী ৬ মাসের মধ্যে কোনও একটি আসনে জয়লাভ করতে হবে তাঁকে। পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)-র জয়লাভ করেছে ৭৭টি আসনে।

এদিনের মমতার শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে ছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রশান্ত কিশোর, ফিরহাদ হাকিম, পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সুব্রত বক্সি, বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়, অরূপ বিশ্বাস, দেব, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, প্রদীপ ভট্টাচার্য, শতাব্দী রায়রা। তবে আসেননি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, এই পরিস্থিতিতে উৎসব না করে বরং মানুষের পাশে দাঁড়াতে। তিনি বলেছেন, পরিস্থিতি স্বাভবিক হলে এই বিজয় উৎসব হবে ব্রিগেডের মাঠে। উল্লেখ্য, আজ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতার শপথ গ্রহনের পর আগামীকাল বিধায়করা শপথ নেবেন। ৬ তারিখ থেকে বিধায়কদের শপথ ৷ নবনির্বাচিত বিধায়কদের শপথ নেওয়াবেন প্রোটেম স্পিকার সুব্রত মুখোপাধ্যায়। পরে বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় হবেন স্পিকার।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.